সোমবার ২০ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

একই স্থানে শাখা খোলা নিয়ে সোনালী ও অগ্রণী ব্যাংকের দ্বন্দ্ব

বিবিএ নিউজ.নেট   |   শনিবার, ০৯ জানুয়ারি ২০২১   |   প্রিন্ট   |   420 বার পঠিত

একই স্থানে শাখা খোলা নিয়ে সোনালী ও অগ্রণী ব্যাংকের দ্বন্দ্ব

আর্থিক বাণিজ্য নিয়ে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ছে দেশের শীর্ষ দুই রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক। আর এ দ্বন্দ্বের নেপথ্যে রয়েছে একই স্থানে শাখা খোলার অনুমোদন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দীর্ঘ ৫৫ বছর ধরে একমাত্র প্রতিষ্ঠান হিসেবে ব্যাংকিং সেবা দিয়ে আসছে অগ্রণী ব্যাংক। সেখানে সোনালী ব্যাংকের একটি নতুন শাখা খোলার জন্য নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। তবে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব বরাবর চিঠি দিয়ে এ অনুমোদন বাতিলের জন্য আবেদন করেছেন অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী (সিইও)। এ নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগও।

অগ্রণী ব্যাংকের এমডি ও সিইও মোহাম্মদ শামস-উল ইসলাম অর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিবকে পাঠানো চিঠিতে উল্লেখ করেছেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন আধা মাইলের মধ্যে কাজলা গেট এলাকায় মতিহার শাখা নামে সোনালী ব্যাংকের একটি শাখা থাকা সত্ত্বেও তাদের আবেদনক্রমে সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সোনালী ব্যাংককে একটি শাখা খোলার অনুমোদন দিয়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ। এতে সরকারি মালিকানাধীন দুটি ব্যাংকের মধ্যে অনাকাঙ্খিত ও অশুভ প্রতিযোগিতা তৈরি হতে পারে। তাই নতুন শাখা খোলার সিদ্ধান্ত বাতিলের সুপারিশ করেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শামস-উল ইসলাম বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একাধিক ব্যাংকের শাখা আছে এটা ঠিক আছে। কারণ এখানে অনেক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানও আছে। তাই ব্যাংকিং কার্যক্রমও বেশি। কিন্তু রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সে তুলনায় ছোট পরিসরের। পলিসিটা এ রকম যে, এ রকম জায়গায় একটা সরকারি ব্যাংক থাকলে অন্যটা স্থাপন করা যাবে না। এজন্য আমরা নতুন শাখা খোলার অনুমোদন বাতিল করার প্রস্তাব পাঠিয়েছি। আমরা মিলেমিশে একসঙ্গে কাজ করতে চাই। আমাদের নিজেদের মধ্যে যেন কোনো অশুভ প্রতিযোগিতা না হয়, সেজন্য এ ধরনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত নভেম্বর থেকেই অগ্রণী ব্যাংকেও ট্রেজারি কার্যক্রম চালু হয়েছে। সুতরাং এক্ষেত্রেও সোনালী ব্যাংকের কোনো প্রয়োজন নেই। অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাশাপাশি দুটি ব্যাংকের শাখা থাকলে নিশ্চিতভাবে উভয় ব্যাংকের লাভের অংশ কমে যাবে অথবা লাভ হবে না। কারণ ওখানে তো বিজনেস সীমিত। সেখানে বড় কোনো কল-কারখানা নেই।

জানা গেছে, সম্প্রতি সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালিতে শাখা খোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ওই সিদ্ধান্তের আলোকে নীতিগত অনুমোদনের জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের কাছে আবেদনও করে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। এরই পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০ ডিসেম্বর দুটি শাখা খোলার নীতিগত অনুমোদন দেয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানের এ নীতিগত সিদ্ধান্তের বিষয়টি চিঠির মাধ্যমে জানানো হয়, অর্থমন্ত্রী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরকে। ওই চিঠিতে বলা হয়, দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে সোনালী ব্যাংক কর্তৃক প্রস্তাবিত দুটি নতুন শাখা খোলার বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হলো।

 

সোনালী ব্যাংকের এমডি ও সিইও মো. আতাউর রহমান প্রধান বণিক বার্তাকে বলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষই আমাদের একটি শাখা খোলার জন্য প্রস্তাব করেছিল। একই জায়গায় কিংবা একই ভবনে অনেক ক্ষেত্রে চার-পাঁচটা ব্যাংক দেখা যায়। আমরা মনে করি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় একটি বড় জায়গা। সেখানে আমাদেরও সেবা দেয়ার সুযোগ রয়েছে, তাদেরও রয়েছে। যে যত ভালো সার্ভিস দেবে, গ্রাহক তার কাছেই যাবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা যাচাই-বাছাই করে দেখেছি, সেখানে ব্যবসার ভালো সুযোগ-সম্ভাবনা রয়েছে। সবকিছু দেখেই আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রস্তাব গ্রহণ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের পাশাপাশি অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছিলাম। এরই মধ্যে অর্থ মন্ত্রণালয় অনুমোদনও দিয়েছে। সার্বিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রস্তাব পাঠাব। এখানে অনৈতিক কোনো প্রতিযোগিতার বিষয় সংশ্লিষ্ট নয়। আসল কথা হলো, আমরা কে কতটুকু সার্ভিস দিয়ে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারি। উদাহরণ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একই জায়গায় সোনালী, জনতা ও অগ্রণী ব্যাংকের শাখা থাকার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব আসাদুল ইসলাম বর্তমানে ব্যক্তিগত সফরে দেশের বাইরে রয়েছেন। দেশে ফিরে দুই ব্যাংকের মধ্যকার এ জটিলতার বিষয়টি সমাধানের উদ্যোগ নেবেন তিনি।

 

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১১:১৮ পূর্বাহ্ণ | শনিবার, ০৯ জানুয়ারি ২০২১

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।