রবিবার ২৩ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৯ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নতুন বছরের অর্থনীতি

কঠিন সময় পার করে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ

বিবিএনিউজ.নেট   |   বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০   |   প্রিন্ট   |   298 বার পঠিত

কঠিন সময় পার করে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ

শুরু হয়েছে নতুন খ্রিস্টীয় বর্ষ ২০২১। নতুন আশা, নতুন সময়ের হাতছানি। সময়ের নিয়মে পরিবর্তন হবে অনেক কিছু। এই পরিবর্তন মানুষের জীবনমানকে ইতিবাচক ধারায় বদলে দেবে এমন প্রত্যাশাই থাকে সকল জাতির মধ্যে। এ উপলক্ষে আমরা পাঠক ও দেশবাসীকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা। নতুন বছরকে ঘিরে বিশ্বব্যাপি চলতে থাকে বদলে যাওয়ার আরাধনা, সমৃদ্ধির সাধনা। বাংলাদেশের জন্য অবশ্য ২০২১ আরও বড় কিছু। এই বছর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী। লাখ-লাখ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধনীতার পঞ্চাশ বছর। আমাদের আত্মপরিচয়ের একটি বড় মাইলফলক। দীর্ঘ সংগ্রাম ও ত্যাগের মধ্য দিয়ে অর্জিত এই স্বাধীনতা আমাদের দিয়েছে বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার অবারিত সুযোগ। নানা ক্ষেত্রে স্বাধীন বাংলাদেশের অর্জন দেখছে বিশ্ববাসী। একটি উন্নত সমৃদ্ধ দেশের জন্য আমাদের কৃষক-শ্রমিকসহ দেশের মানুষ অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে দেশের অর্থনীতির আকার বেড়েছে। বেশ কয়েকটি সামাজিক সূচকে দেশের উন্নতি দৃশ্যমান হচ্ছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ দেশের ইতিহাসে রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। এই অর্জন দেশপ্রেমিক মানুষের, এই অর্জন আমাদের সাধারণ কৃষক শ্রমিকের। এর মধ্য দিয়ে একদিন দেশের মানুষ অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জন করবে, এই প্রত্যাশা।

নতুন ছবছরটি আরও একটি কারণে সারা বিশ্ববাসীর মতো আমাদের কাছেও অধিক গুরুত্বের। সেটি হচ্ছে বৈশ্বিক মহামারী ‘কোভিড-১৯।’ এটি বিশ্বব্যাপী ভয়, মৃত্যু আর আতঙ্কের বিষয় হিসেবে চিহ্নিত। বাংলাদেশের মানুষের জীবনেও এর ক্ষতি কম নয়। ইতিমধ্যে করোনার সংক্রমণে আমরা হারিয়েছি অনেক স্বজনকে। যার ক্ষতি কোনোদিনই পুষিয়ে নেয়া সম্ভব নয়। অর্থনীতির ক্ষতি হয়তো এক সময় কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে। স্বজন হারানোর বেদনা আমাদের বইয়ে যেতে হবে।

ভাইরাসটির সংক্রমণ চীন থেকে শুরু, একে একে পুরো পৃথিবী। কলকারখানা ও গাড়ির চাকা বন্ধ। বিশ্বজুড়ে মহামারী। অচল অর্থনীতির চাকা। কোভিড-১৯-এর প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে দেশে দেশে সরকারগুলো প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করে। বাংলাদেশও এ থেকে পিছিয়ে থাকেনি।

গত ৮ মার্চ কোভিড-১৯-এ প্রথম আক্রান্ত চিহ্নিত হওয়ার দুই সপ্তাহ পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেন। তারও এক সপ্তাহ পর ৫ এপ্রিল ঘোষণা করা হয় বিভিন্ন খাতে আরো ৬৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্যাকেজ। পরে বাড়াতে বাড়াতে প্যাকেজ করা হয় ২১টি। মোট প্যাকেজের আকার দাঁড়ায় ১ লাখ ২১ হাজার ৩৫৩ কোটি টাকা।

আমরা আশা করি দেশবাসীর সম্মিলিত চেষ্টার মধ্য দিয়ে এই কঠিন সময় পার করে ২০২১ সালে আমরা নতুন করে সামনে এগিয়ে যেতে পারবো। সেই কামনায় দেশবাসীকে আবারো শুভেচ্ছা।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৫:০০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর ২০২০

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।