• করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আইএসডিবির কাছে সহায়তা চাইলেন অর্থমন্ত্রী

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৫ এপ্রিল ২০২০ | ১০:১০ অপরাহ্ণ

    করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আইএসডিবির কাছে সহায়তা চাইলেন অর্থমন্ত্রী
    apps

    নভেল করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় খাদ্য নিরাপত্তা, চিকিৎসা ও কৃষি ব্যবস্থার উন্নয়ন ও যান্ত্রিকীকরণে ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইএসডিবি) কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।
    আজ শনিবার (২৫ এপ্রিল) অর্থমন্ত্রী ইসলামী উন্নয়ন ব্যাংকের (আইএসডিবি) প্রেসিডেন্ট ড. বন্দর এম. এইচ হাজ্জার সঙ্গে করোনার প্রভাবে মানবজাতি ও অর্থনীতির উপর যে বিরুপ প্রভাব পড়ছে তা নিয়ে টেলিকনফারেন্সে আলোচনা কালে এ সহযোগিতা চেয়েছেন।

    এ সময় আইএসডিবির প্রেসিডেন্ট উক্ত তিনটি ক্ষেত্রে সহযোগিতার প্রস্তাব গ্রহন করেন এবং বলেন আইএসডিবি টিম বাংলাদেশ টিমের সাথে বসে অর্থায়ন ও টাইমলাইন আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করে নেবে।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    এর আগে অর্থমন্ত্রী আইএসডিবি সদস্য দেশগুলির জন্য কভিড-১৯ মোকাবেলায় ২.৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের যে কৌশলগত প্রস্তুতি ও প্রতিক্রিয়া প্যাকেজ ঘোষণা করেছে তার জন্য আইএসডিবি’র প্রেসিডেন্টেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। তিনি প্রেসিডেন্টের গতিশীল নেতৃত্ব ও ভূমিকার প্রশংসা করে আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, আইএসডিবি’র এ পদক্ষেপ সদস্য দেশগুলোর মানুষ ও অর্থনীতির উপর কভিড-১৯ এর বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে বলে উল্লেখ করেন।

    অর্থমন্ত্রী তুলে ধরেন, বাংলাদেশ আইএসডিবির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং ১৯৭৪ সাল থেকে চার দশকেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বস্ত অংশীদার। বাংলাদেশ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আইএসডিবি’র সহযোগীতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৮ সালে ঢাকায় আঞ্চলিক কেন্দ্র চালু করেছে। আইএসডিবি’র আঞ্চলিক হাবের উপস্থিতিতে আঞ্চলিক সম্পর্ক আরও জোরদার হবে বলে মাননীয় মন্ত্রী আন্তরিকভাবে আশা ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশে বর্তমানে বিভিন্ন খাতে আইএসডিবি’র সহায়তায় মোট ১১ টি প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্প বাস্তবায়ন হার সন্তোষজনক।


    আইএসডিবি প্রেসিডেন্টের সাথে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশের গৃহিত পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনাকালে অর্থমন্ত্রী জানান, লকডাউন ও গণছুটির কারনে বাংলাদেশে অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে নেমে এসেছে স্থবিরতা। প্রধানমন্ত্রী দেশের মানুষ ও অর্থনীতির জন্য ১১.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিভিন্ন আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন, যা জিডিপি’র ৩.৫ শতাংশ। এই প্যাকেজের অর্থ ব্যয়ে জনসাধারণের ব্যয় বৃদ্ধি, সামাজিক সুরক্ষা জালকে প্রশস্ত করা এবং আর্থিক সরবরাহ বাড়ানোর ক্ষেত্রে জোর দেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত শিল্প, পরিষেবা খাত এবং কুটির শিল্পগুলিকে সুরক্ষার জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে কার্যনির্বাহী মূলধনের বিধান অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। উদ্ভুত পরিস্থিতি মোকাবেলায় অর্থসংস্থান আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। এ মুহূর্ত সবচেয়ে জরুরী মানুষের জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং ক্ষতিগ্রস্থ স্বল্প আয়ের মানুষের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা।

    এ সময় আইএসবিডির প্রেসিডেন্ট ড. বন্দর এম. এইচ হাজ্জার বাংলাদেশের গৃহিত বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রশংসা করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী কতৃক ঘোষিত সময়োপযোগী আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

    তিনি অর্থমন্ত্রীকে বলেন, আপনার মাধ্যমে আমি আশ্বস্থ করতে চাই যে, আইএসডিবি বাংলাদেশের জনগন ও সরকারের সাথে আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে ইনশাআল্লাহ।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ১০:১০ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২০

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    রডের দাম বাড়ছে

    ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি