মঙ্গলবার ২১ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চাল আমদানিতে শুল্ক বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

বিবিএনিউজ.নেট   |   সোমবার, ২০ মে ২০১৯   |   প্রিন্ট   |   455 বার পঠিত

চাল আমদানিতে শুল্ক বাড়বে: অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, দেশের কৃষকদের ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে চাল আমদানিতে কঠোর হবে সরকার এবং আমদানি নিরুৎসাহিত করতে অতিরিক্ত শুল্ক আরোপ করা হবে। পাশাপাশি দেশের বাড়তি চাল রফতানির উদ্যোগ হিসেবে ভর্তুকি দেয়া হবে।

তিনি বলেন, কৃষকের উৎপাদন খরচ কমাতে কৃষির যান্ত্রিকীকরণে উচ্চ ভর্তুকি দেয়া হবে। এছাড়া আগামী অর্থবছরে পরীক্ষামূলকভাবে পোলট্রি শিল্পে কৃষি বীমা চালু করা হবে।

রোববার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এসব কথা বলেন আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট ঘোষণার আগে ‘কৃষি ও কৃষকের বাজেট’ নামে একটি প্রস্তাবনা অর্থমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন কৃষি উন্নয়ন ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব শাইখ সিরাজ। কৃষিতে সরকারের বরাদ্দ ও বিশেষ গুরুত্ব প্রস্তাব হিসেবে অর্থমন্ত্রীর কাছে বেশকিছু সুপারিশমালা তুলে ধরেন তিনি।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, এ বছর আমরা অনেক খাদ্যশস্য উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের যেমন বেশি উৎপাদন হয়েছে, তেমনি আশপাশের দেশেও খাদ্যশস্যের উৎপাদন বেড়েছে। তার পরও দেশের কৃষকদের বাঁচাতে চাল রফতানি করা হবে, এজন্য ভর্তুকি দেয়া হবে। তবে চাল আমদানি একেবারেই বন্ধ করা হয়তো যাবে না। কিন্তু নিয়ন্ত্রণ করা হবে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, আমাদের কৃষককে বাঁচাতে হবে। আমরা সরকার থেকে যেটা করতে পারি, সেটা হলো আমদানি নিয়ন্ত্রণ করা। আর আমরা সে কাজটিই করব। কিন্তু আমরা আমদানি ব্যান্ড (বন্ধ) করে দিতে পারব না। এক্ষেত্রে অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে যা যা করা দরকার, তা করা হবে। শিগগিরই এর প্রতিফলন দেখা যাবে।
আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্যের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী অবশ্যই সুবিবেচনা করবেন। কেননা তিনি কৃষকদের নিয়ে ভাবেন। বঙ্গবন্ধুর মতো তিনিও বলেন, কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ভর্তুকি দিয়ে সবজি রফতানি করায় সবজির উৎপাদন বেড়েছে। এর আগে উৎপাদন ভালো হওয়া সত্ত্বেও কৃষকরা সবজির দাম পাচ্ছিলেন না, এগুলো পচে যাচ্ছিল। আওয়ামী লীগ সরকার সবজি রফতানির ব্যবস্থা করেছে। কৃষক রফতানি খরচ দিতে পারেন না বলে সরকার সেখানে ভর্তুকি দিচ্ছে। আর রফতানির কারণে এর বাড়তি চাহিদা তৈরি হয়েছে। এখন সবজিতে দামটাও ভালো পাচ্ছেন কৃষক।

শুধু সবজি নয়, যে বছর যে পণ্য বেশি উৎপাদন হবে, সেগুলোও রফতানি করা হবে বলে জানান আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, তাহলে চাহিদা ও জোগানের মধ্যে মিসম্যাচটা (ব্যবধান) হবে না। ন্যায্য দামটা কৃষক পাবেন।
অর্থমন্ত্রী বলেন, উৎপাদন করে তারা যদি উৎপাদনের খরচ না পান, তাহলে একদিকে তারা নিরুৎসাহিত হবেন। অন্যদিকে আমরা মনে করি, এটি সরকারের জন্য একটি অনৈতিক বিষয়। সরকারকে সবদিকেই দেখতে হবে, উৎপাদনও দেখতে হবে, উৎপাদনের জন্য সহায়ক যা আছে, এগুলোরও সমাধান দিতে হবে। এটা সরকারের নৈতিক দায়িত্ব। আমি মনে করি, এটা অবশ্যই করণীয়।

কৃষি যন্ত্রপাতির বিষয়ে মুস্তফা কামাল বলেন, আমাদের কাছে যে তথ্য আছে, তা হলো কৃষি যন্ত্রপাতিগুলো নিতে চান না কৃষক। আমরা কৃষি যন্ত্রপাতিতে ভর্তুকি দিতে চাই। তারপর কৃষককে জোর করে তা দিতে হয়। তবে আমরা কৃষককে কৃষি যন্ত্রপাতি ব্যবহারে উৎসাহিত করব, তাদের বোঝাব কৃষিযন্ত্র ব্যবহার করলে উৎপাদন খরচ কমবে, কিন্তু উৎপাদন বাড়বে।

তিনি বলেন, আমরা আগামীতে যে কাজটি করব, তা হলো উৎপাদনে ব্যবহার হোক আর না হোক, কৃষি যন্ত্রপাতিতে সয়লাব করে দেয়া হবে। কৃষক যখন লাগবে তখন ব্যবহার করবেন, তবে ব্যবহার করতে হবে।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৩:৩৫ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২০ মে ২০১৯

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

রডের দাম বাড়ছে
(11228 বার পঠিত)

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।