• তহবিলের ৩৮ হাজার কোটি টাকা সরবরাহ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৮ এপ্রিল ২০২০ | ৯:২২ অপরাহ্ণ

    তহবিলের ৩৮ হাজার কোটি টাকা সরবরাহ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক
    apps

    করোনা ভাইরাসের কারণে আর্থিক ক্ষতি মোকাবিলায় সরকার ঘোষিত ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার তহবিলের ৩৮ হাজার কোটি টাকা সরবরাহ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ঋণ কেন্দ্রিক এই প্যাকেজের টাকা আসবে ব্যাংকিং খাত থেকে। এর মধ্যে যেসব টাকা বাংলাদেশ ব্যাংক সরবরাহ করবে তা তিন বছরের মধ্যে বাজার থেকে তুলে নেওয়া হবে বলে জানা গেছে। সূত্র জানায়, এর আগে কোন সময়ে এত বড় অংকের অর্থ যোগান দেয়নি বাংলাদেশ ব্যাংক।

    সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জাতির এরূপ সংকটকালে সব শ্রেণিরই এগিয়ে আসা উচিত। শুধুমাত্র সরকারের ওপর দায়ভার দেওয়া ঠিক হবে না। এরই মধ্যে সরকার যেসব সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেগুলো আর্থিক খাতের জন্য নিশ্চয়ই উপকারী। তবে টাকাগুলো যাতে সঠিকভাবে সঠিক ব্যক্তির কাছে হস্তান্তর করা হয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    জানা গেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক নিজস্ব উৎস থেকে বড় ও সেবা শিল্পের জন্য ১৫ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করেছে। এই তহবিলের ঋণের সুদহার হবে ৯ শতাংশ। এরমধ্যে সাড়ে ৪ শতাংশ পরিশোধ করবে ব্যাংক এবং বাকি সাড়ে ৪ শতাংশ ভর্তুকি হিসেবে দেবে সরকার।

    রপ্তানি খাতে প্রি-শিপমেন্ট ঋণ দিতে ৫ হাজার কোটি টাকার তহবিল গঠন করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। গ্রাহক পর্যায়ে এই ঋণের সর্বোচ্চ সুদহার হবে ৪ শতাংশ। ঋণ বিতরণের পর বরাদ্দকৃত তহবিল থেকে পর্যায়ক্রমে এই টাকা পাবে ব্যাংক।


    ক্ষতিগ্রস্ত নিম্নআয়ের পেশাজীবী, কৃষক, প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য গঠন করা হয়েছে ৩ হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন স্কিম। গ্রাহক পর্যায়ে এই ঋণের সুদহার নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ শতাংশ।

    অন্যদিকে শুধুমাত্র কৃষি খাতের জন্য গঠন করা হয়েছে ৫ হাজার করে টাকার বিশেষ তহবিল।

    এছাড়াও ক্ষতিগ্রস্ত কুটির, ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারিদের জন্য সরকার ২০ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। এই প্যাকেজের অর্ধেক অর্থাৎ ১০ হাজার কোটি টাকা যোগান দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। ঘোষিত প্যাকেজের মধ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক যোগান দেবে সবমিলিয়ে ৩৮ হাজার কোটি টাকা।

    ব্যাংকাররা বলছেন, এই মুহূর্তে আমানত আসা বন্ধ হয়ে গেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনার পর ঋণ আদায় বন্ধ। তাই করোনা ভাইরাস পরবর্তীকালে বিপর্যস্ত অর্থনৈতিক পরিস্থিতি মোকাবিলা ও তারল্য পরিস্থিতি ভালো রাখতে সময়োপযোগী সহায়তা প্যাকেজ প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। প্যাকেজের যেসব অর্থ কেন্দ্রীয় ব্যাংক সরবরাহ করবে তার সবগুলোরই সুদহার ১ থেকে ৪ শতাংশের মধ্যে। অদূর ভবিষ্যতে আরো অনেক প্রণোদনা ঘোষণা আসার সম্ভাবনা রয়েছে।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৯:২২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল ২০২০

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    রডের দাম বাড়ছে

    ১৩ জানুয়ারি ২০১৯

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি