সোমবার ১৭ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিআইএ’র সাধারণ সভায় বক্তারা

দ্রুত দাবি পরিশোধ,বীমায় আস্থা ফেরানোর তাগিদ

নাসির আহমাদ রাসেল   |   সোমবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২২   |   প্রিন্ট   |   219 বার পঠিত

দ্রুত দাবি পরিশোধ,বীমায় আস্থা ফেরানোর তাগিদ

দ্রুত এবং যথাসময়ে দাবি পরিশোধ করে বীমায় গ্রাহকের আস্থা ফেরানোর তাগিদ এসেছে বীমা কোম্পানিগুলোর সংগঠন বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিআইএ) ৩৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায়। একই সঙ্গে নন-লাইফ ইন্স্যুরেন্স খাতে অবৈধ অতিরিক্ত কমিশনের মাধ্যমে ব্যবসা সংগ্রহের অসুস্থ প্রতিযোগিতা নিয়েও উদ্বেগ জানানো হয়েছে বিভিন্ন বীমা কোম্পানির পক্ষ থেকে।

সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেনের সভাপতিত্বে সোমবার রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে অনুষ্ঠিত সভায় বীমা কোম্পানিসমূহের চেয়ারম্যান, পরিচালক এবং মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় নির্ধারিত আলোচ্যসূচির মধ্যে বিআইএ’র ২০২১ সালের বার্ষিক প্রতিবেদনের উপর আলোচনা ও অনুমোদন, সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত হিসাব বিবরণী / প্রতিবেদন আলোচনা ও অনুমোদনের পাশাপাশি ২০২২ সালের হিসাব নিরীক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করতে নিরীক্ষক নিয়োগ এবং পারিশ্রমিক নির্ধারণ করা হয়।

এরপর অনির্ধারিত আলোচনায় লাইফ ও নন-লাইফ বীমা খাতের বিভিন্ন সমস্যা-সম্ভাবনা, বীমা কোম্পানিগুলোর নেতিবাচক ও ইতিবাচক বিষয় নিয়ে কথা বলেন সংশ্লিষ্টরা। সভায় দ্রুত এবং যথাসময়ে দাবি পরিশোধ করে বীমায় গ্রাহকের আস্থা ফেরাতে কোম্পানিগুলোকে জোর তাগিদ দেন বিআইএ’র প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন। এ সময়, যেসব কোম্পানি শতভাগ বীমা দাবি পরিশোধ করেছে ও অন্যান্য বিধি বিধান অনুসরণে এগিয়ে রয়েছে বীমা দিবসে তাদেরকে সম্মানিত করার প্রস্তাব আইডিআরএ’র কাছে দেয়ার কথা জানান তিনি। বলেন, এতে কোম্পানিগুলো নিয়ম নীতি মেনে ব্যবসা পরিচালনায় আরো উৎসাহিত হবে।
অনির্ধারিত আলোচনায় সবচেয়ে বেশি উঠে আসে নন-লাইফ বীমা খাতে অতিরিক্ত কমিশন দিয়ে ব্যবসা হাতানোর অসুস্থ প্রতিযোগিতার কথা। সভায় এই অতিরিক্ত কমিশন বন্ধে আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড বজায় রেখে নন-লাইফ খাতে ব্যবসা করার প্রস্তাব তোলেন বিআইএ’র শীর্ষ পর্যায়ের একজন নেতা। তবে আরেক শীর্ষ নেতা এতে আপত্তি জানিয়ে বলেন, বাংলাদেশে এখনো আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড বজায় রেখে ব্যবসা হচ্ছে না। আমরা এখনো সেখানে যেতে পারিনি।

সভায় সাধারণ বীমা কর্পোরেশনের সাথে নন লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর পুনঃবীমা দাবি নিষ্পত্তি সংক্রান্ত জটিলতা কীভাবে সমাধান করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করেন সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র জানায়, সভায় দুই, তিন, চার বছরের পলিসির নামে ব্যাংকের মতো কয়েকটি কোম্পানি যে এফডিআর করছে তা বন্ধে পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানানো হয়। বলা হয়, বীমা নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই কয়েকটি কোম্পানি অবৈধভাবে এই ব্যবসা করছে।

সভায় বীমা কোম্পানিগুলোকে সম্মাননা দেয়ার ক্ষেত্রে প্রজন্মভিত্তিক মূল্যায়নের দাবি জানান একজন মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা। তিনি বলেন, রিঅ্যায়ার্ডের ক্ষেত্রে বীমা পরিশোধ, প্রিমিয়াম সংগ্রহসহ অন্যান্য বিধি বিধান কারা কতটা অনুসরণ করছে সেসব বিষয় বিবেচনায় নেয়া উচিত।

সভায় উপস্থাপিত বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২১ সালে বেসরকারি জীবন বীমা খাতে কোম্পানিগুলোর উপার্জিত প্রিমিয়াম আয়ের পরিমাণ ছিল ৯৬,২৮৯ মিলিয়ন টাকা। ২০২০ সালে যার পরিমাণ ছিল ৮৯,২৬৪ মিলিয়ন টাকা। প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রথম বর্ষ প্রিমিয়াম ও নবায়ন প্রিমিয়াম ২০২০ সালের তুলনায় ২০২১ উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। লাইফ ফান্ড ২০২১ সালে বৃদ্ধি পেয়ে ৩২৭,৪৭৮ মিলিয়নে উন্নীত হয়েছে যা ২০২০ সালে ছিল ৩২৬,৭১৫ মিলিয়ন। গত বছরের তুলনায় লাইফ ফান্ড বৃদ্ধির পরিমাণ ০.২৩ শতাংশ। ২০২১ সালের বিনিয়োগ হয়েছে ৩৩৩,৯৩৪ মিলিয়ন যা ২০২০ সালে ছিল ৩০৯,২৮৬ মিলিয়ন অর্থাৎ প্রবৃদ্ধির পরিমাণ ৭.৯৭ শতাংশ। এছাড়া, মোট সম্পদ ২০২০ সালে ছিল ৪১৩,৭৪১ মিলিয়ন যা ২০২১ সালে ৪২৯,৪৬৮ মিলিয়নে উন্নীত হয়। অর্থাৎ মোট সম্পদ বৃদ্ধির পরিমাণ ৩.৮০ শতাংশ।

বেসরকারি নন-লাইফ বীমা কোম্পানিগুলোর মোট প্রিমিয়াম আয়ের পরিমাণ ২০২১ সালে হয়েছে ৩৭,৮৪৯ মিলিয়ন টাকা যা ২০২০ সালে ছিল ৩৩,৯১৫ মিলিয়ন টাকা। যা গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে ১১.৬০ শতাংশ। নন-লাইফ বীমা কোম্পানির ২০২০ সালে সম্পদের পরিমাণ ৯৩,৫৬৩ মিলিয়ন থেকে ২০২১ সালে ১০৫,০৫৬ মিলিয়নে উন্নীত হয়। যা গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধির পরিমাণ ১২.২৮ শতাংশ। এছাড়া, নন-লাইফ বীমা খাতে ২০২০ সালের বিনিয়োগের পরিমাণ ছিলো ৪৫,৮৬২ মিলিয়ন টাকা যা ২০২১ সালে হয়েছে ৫৩,২৯২ মিলিয়ন টাকা। অর্থাৎ বিনিয়োগ বৃদ্ধির পরিমাণ ১৬.২০ শতাংশ।

বিআইএ’র প্রেসিডেন্ট তার বক্তব্যে ২০২১ সালের বার্ষিক প্রতিবেদনের উপর-আলোচনা করেন। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন মেঘনা লাইফ ও কর্ণফুলি ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন আহমেদ, ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্সের চেয়ারম্যান মোজাফফর হোসেন পল্টু, বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রথম ভাইস-প্রেসিডেন্ট নাসির উদ্দিন আহমেদ (পাভেল), ভাইস-প্রেসিডেন্ট এ কে এম মনিরুল হক।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৭:৫৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১২ ডিসেম্বর ২০২২

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।