শুক্রবার ২৪ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দণ্ডপ্রাপ্ত মোহাম্মদী খানমকে দেশ জেনারেলের সিইও করার প্রস্তাব

নিয়োগ দিতে অতিউৎসাহি আইডিআরএ, বিবেচনার সুযোগ নেই বলে পূর্বের প্রস্তাব নাকচ

  |   মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১   |   প্রিন্ট   |   386 বার পঠিত

নিয়োগ দিতে অতিউৎসাহি আইডিআরএ, বিবেচনার সুযোগ নেই বলে পূর্বের প্রস্তাব নাকচ

অনিয়মে জড়িত থাকার বিষয়ে তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় শাস্তি ও জরিমানার কবলে পড়েন মোহাম্মদী খানম নামক সাবেক মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা। এমনকি এই দায় মাথায় নিয়ে কোম্পানি থেকে বিদায়ও নিতে হয় তাকে। পরবর্তীতে তাকে দেশ জেনারেলের সিইও করার প্রস্তাব পাঠানো হলে তাও নাকচ করে দেয় বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ।

শুধু তাই নয়, বিষয়টি বিবেচনারও সুযোগ নেই বলে আইডিআরএ’র পক্ষ থেকে মতামত জানানো হয়। কিন্তু মাত্র দুই মাসের ব্যবধানে এবার সেই কর্মকর্তাকেই রহস্যজনক কারণে নিয়োগ দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ। বীমাখাতের সাম্প্রতিক অস্থিরাবস্থার মধ্যে এমন ঘটনায় ফের নিয়ন্ত্রক সংস্থার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে খাত বিশেষজ্ঞ ও সংশ্লিষ্টদের মাঝে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১২ এপ্রিল দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের ১৩৪তম পর্ষদ সভায় মোহাম্মদী খানমকে গত ২৩ মে থেকে পরবর্তী তিন বছরের জন্য সিইও হিসেবে নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ জন্য ২০ মে কোম্পানির পক্ষ থেকে নিয়োগ প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য আইডিআরএ’র কাছে চিঠি পাঠানো হয়। কিন্তু প্রাইম ইন্স্যুরেন্সে দায়িত্বকালে দুর্নীতিতে জড়িত থাকার বিষয়ে আইডিআরএ’র তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় নিয়োগ দেয়া হলে আইনানুযায়ী প্রতিবন্ধকতা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে পরামর্শ দেন প্রশাসন অনুবিভাগে দায়িত্বরত কর্তৃপক্ষের সদস্য মইনুল ইসলাম।

এর প্রেক্ষিতে গত ১৩ জুন কর্তৃপক্ষের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক এস এম শাকিল আক্তার জানান, মোহাম্মদী খানম প্রাইম ইন্স্যুরেন্সে থাকাকালে অনিয়মের দায়ে এক লাখ টাকা জরিমানা দন্ডে দন্ডিত হন এবং তা পরিশোধ করেন। তাই বিদ্যমান অবস্থায় দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিতে তার সিইও অনুমোদনের প্রস্তাবটি বিবেচনা করার সুযোগ নেই।

এ ঘটনার মাত্র দুই মাস পর গত ২২ আগস্ট অনুষ্ঠিত আইডিআরএ’র ১৩৭তম বৈঠকে মোহাম্মদী খানমকে পুনরায় সিইও প্রস্তাব অনুমোদনের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হয়। একবার বাতিল করে পুনরায় আলোচ্যসূচীতে আনায় এ নিয়ে গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে বীমাখাতে। এ বিষয়ে আইডিআরএ’র মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক এস এম শাকিল আক্তারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা মূলত তার (মোহাম্মদী খানমের) বিষয়ে ব্যাপক অনুসন্ধান চালাচ্ছি। বাংলাদেশ ব্যাংকসহ অন্য সংস্থার কাছে তার সম্পর্কিত তথ্যাদি চেয়েছি। যদি আপত্তিকর কিছু পাই তবে অবশ্যই প্রস্তাব বাতিল করা হবে।’

এদিকে আইডিআরএ’র আরেক সূত্র থেকে জানা যায়, প্রাইমের সাবেক ওই নারী কর্মকর্তার সাথে অনেক উপরস্তরের লোকের জানা-শোনা রয়েছে। তাই উপরের চাপেই মূলত আইডিআরএ পুনরায় বৈঠকে বিষটি উপস্থাপন করতে বাধ্য হয়েছে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পরবর্তী সভায় নেয়া হবে বলেও জানায় সূত্রটি।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে বীমাখাতে কয়েকটি বড় বড় ঘটনা সংঘটিত হওয়ায় অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে এই খাতে। এর মধ্যে রয়েছে ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে প্রশাসক নিয়োগ, নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে উৎকোচ গ্রহণের অভিযোগ, বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে পাশ কাটিয়ে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন কর্তৃক দেশের শীর্ষ জীবন বীমা কোম্পানি ফারইস্ট লাইফের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে দেয়া, ফারইস্টের ঘটনার অনুসন্ধানে আইডিআরএ চেয়ারম্যানের সম্পৃক্ততা এবং সর্বশেষ অনিয়মের জেরে আইডিআরএ কর্তৃক ফারইস্টের সিইওকে অপসারণ উল্লেখযোগ্য।

ইতোমধ্যে ফারইস্ট, ডেল্টা লাইফসহ বীমাখাতের বেশ কয়েকটি অনিয়মের ঘটনার অনুসন্ধানে বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থার শীর্ষ নেতৃত্বের সম্পৃক্ততার বিষয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়া সম্প্রতি বীচল্যান্ড লাইফ ইন্স্যুরেন্সের নিবন্ধন সনদ পেতে উৎকোচ ও সুবিধাগ্রহণের বিষয়েও গুঞ্জন উঠেছে। এসবের জেরে আগামী ৩১ অক্টোবর লন্ডনে অনুষ্ঠিতব্য রোডশোতে প্রধানমন্ত্রীর সহযাত্রীর তালিকা থেকে আইডিআরএ চেয়ারম্যান ড. মোশাররফ হোসেনের নাম বাদ দিয়েছে সরকার।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১১:২১ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।