• ন্যাশনাল টি কোম্পানির ২২ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন

    বিবিএনিউজ.নেট | ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৩:১০ অপরাহ্ণ

    ন্যাশনাল টি কোম্পানির ২২ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন
    apps

    ন্যাশনাল টি কোম্পানি লিমিটেডের ৪১তম বার্ষিক সাধারণ সভা ২৪ ডিসেম্বর রাজধানীর কাওরান বাজারে টিসিবি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সমাপ্ত হিসাব বছরের আর্থিক প্রতিবেদন ও ২২ শতাংশ লভ্যাংশ শেয়ারহোল্ডার কর্তৃক অনুমোদিত হয়।

    কোম্পানির চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্য পরিচালদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মো. সারওয়ার কামাল, মো. শাকিল রিজভী, সৈয়দ শাহরিয়ার আহসান, মোহাম্মদ শামসুল আলম ভূইয়া, মো. আবুল হোসেন ও স্বতন্ত্র পরিচালক মো. শওকত আলী ওয়ারেসি ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আবদুল আউয়াল। সভা সঞ্চালনা করেন কোম্পানি সচিব মো. লোকমান হোসেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেনারেল ম্যানেজার নওফেল করিম খান, ডিজিএম পংকজ কান্তি রায় চৌধুরী, ডিজিএম ও সিএফও মো. কেরামত আলী, ডিজিএম (ভারপ্রাপ্ত) সৈয়দ মাহমুদ হাসান, ম্যানেজার-হেড অব ইন্টারনাল অডিট মোল্লা গোলাম মোহাম্মদ, ডেপুটি কোম্পানি সেক্রেটারি এ কে আজাদ চৌধুরী এবং বাগান ব্যবস্থাপক আশরাফুল মতিন চৌধুরীসহ কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিপুলসংখ্যক শেয়ারহোল্ডার। উল্লেখ্য, সমাপ্ত ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে প্রতিষ্ঠানটির নিট টার্নওভার ১১৯ কোটি ৯ লাখ টাকা। প্রতিষ্ঠানটির নেট অ্যাসেট ভ্যালু ১৭৪ টাকা ৬৬ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি আয় ২০ টাকা ৬৭ পয়সা।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা যায়, দেশের রফতানি পণ্যের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে চা। আর এ চায়ের জগতে বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য একটি নাম হচ্ছে ন্যাশনাল টি কোম্পানি। শুধু দেশে নয়, বিদেশের মাটিতেও এটি প্রশংসিত একটি নাম। দেশের স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে সুনামের সাথে ব্যবসা করে আসছে ন্যাশনাল টি কোম্পানি।
    ন্যাশনাল টি কোম্পানির চা দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রফতানি হচ্ছে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির অধীন ১২টি বাগানে কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

    প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে ভোগ্যপণ্য বিভাগে বিশেষ অবদানের জন্য ডান অ্যান্ড ব্রাডস্ট্রিট সাউথ এশিয়া মিডলইস্ট লিমিটেডের উদ্যোগে ‘ডান ব্রাডস্ট্রিট কর্পোরেট অ্যাওয়ার্ডসহ বিভিন্ন পদকে ভূষিত হচ্ছে, যা দেশের ভোগ্যপণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের জন্য একটি বিশেষ সম্মান।


    কোম্পানিটি ১৯৭৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে বর্তমানে ১২ হাজার হেক্টর জমিতে চা বাগান পরিচালনা করে আসছে।
    প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদে ৮ জন সদস্য রয়েছেন। যার চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন শেখ কবির হোসেন। এটি ঢাকা এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেডের তালিকাভুক্ত। বর্তমানে দেশের ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে মন্দা পরিস্থিতি বিরাজ করলেও প্রতিষ্ঠানটি সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে। প্রতিষ্ঠানটির বর্তমানের সার্বিক পরিসংখ্যান চিত্র নিচে তুলে ধরা হলো-

    মূলধন : বর্তমানে কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধনের পরিমাণ ২৫ কোটি টাকা। যার প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ২ কোটি ৫০ লাখ সাধারণ শেয়ারে বিভক্ত। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সালে কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ছিল ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা।

    উৎপাদন ও বিক্রয় : বিশ্বের অর্থনৈতিক মন্দা, বিদেশি বায়ারদের অনুপস্থিতি, বিরূপ আবহাওয়া, বাগানে লিফ রাস্ট বালাইয়ের আক্রমণ, শ্রমিক মজুরি বৃদ্ধি এবং পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে নিম্নমানের চা কম মূল্যে আমদানিসহ নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও ২০১৯ সালে কোম্পানিটি বিক্রয়ে তার নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছে। আলোচ্য বছরে কোম্পানি ৫৫ লাখ ৪৯ হাজার ৫৫০ কেজি চা উৎপাদন করে, যা ২০১৮ সালে ছিল ৫১ লাখ ৮৪ হাজার ২০৯ কেজি। আলোচ্য বছরে উৎপাদনে কোম্পানির প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ৭.০৫ শতাংশ; উৎপাদন বৃদ্ধি সত্ত্বেও চায়ের মূল্য বৃদ্ধি না পাওয়ার কারণে প্রতিষ্ঠানটি কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেনি। তবে ২০১৯ সালে বড় ধরনের ক্ষতি থেকে রক্ষা পায় বলে শেয়ারহোল্ডারদের অভিমত। প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক প্রতিবেদন-২০১৯ বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, আলোচ্য বছরে কোম্পানির মোট বিক্রয় হয়েছে ১১৯ কোটি ৯ লাখ টাকা, যা আগের বছর ছিল ১১৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকা।

    এছাড়াও চা উৎপাদন ও প্রক্রিয়াজাতকরণে বিদেশ থেকে উন্নতমানের মেশিনারিজও ক্রয় করা হয়েছে এবং আরো কিছু আমদানির অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানান তিনি।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৩:১০ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি