• পাচার অর্থ ফেরত আনার ক্ষমতা নেই দুদকের : চেয়ারম্যান

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২১ নভেম্বর ২০২২ | ৭:০৭ অপরাহ্ণ

    পাচার অর্থ ফেরত আনার ক্ষমতা নেই দুদকের : চেয়ারম্যান
    apps

    দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ বলেছেন, আইনি জটিলতা এবং বাধ্যবাধকতার কারণে বিদেশে পাচার হওয়া অর্থ সরাসরি ফেরত আনার ক্ষমতা তাদের নাই। সরকারের অন্যান্য সংস্থা এবং প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিভিন্ন দেশের কাছে অর্থপাচার সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য চাইতে হয়। কিন্তু ওইসব দেশ সহজে তথ্য দিতে চায় না। তারা আইনের নানা ফাঁক-ফোকরে সময় ক্ষেপণ করেন। যার ফলে দুদক চেষ্টা করেও বিদেশে অর্থপাচারকারীদের তথ্য দ্রুত পাচ্ছে না।

    সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকালে দুদকের ১৮তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময়কালে সংস্থার চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ এসব কথা বলেন। এ সভায় দুদকের কমিশনার (অনুসন্ধান) ড. মোজাম্মেল হক খান, কমিশনার (তদন্ত) জহুরুল হক, দুদক সচিব মো. মাহবুব হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এক পর্যায়ে দুদকের কার্যক্রম নিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ এবং দুই কমিশনার ।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    দুদক চেয়ারম্যান বলেন, অর্থপাচার নিয়ে কাজ করে সরকারের সাতটি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান। এরমধ্যে দুদক সাত ভাগের এক ভাগ অপরাধ নিয়ে কাজ করছে। তারপরও অর্থপাচার ঠেকাতে কাজ করে যাচ্ছে দুদক। পাচার হওয়া অর্থ ফেরত আনার প্রক্রিয়াটাও দীর্ঘ। বিভিন্ন মাধ্যমে যেতে হয়। অথচ অর্থপাচার নিয়ে দুদকের কার্যক্রম নিয়ে সবাই প্রশ্ন তুলছেন।

    তিনি বলেন, বেশ কয়টি বড়বড় অপরাধ দুদকের শিডিউলেই নেই। যারফলে ওইসব অপরাধ নিয়ে কাজের ক্ষমতা এখন দুদকের নেই। দুদকের চেয়ারম্যান বলেন, যেসব দেশে টাকা পাচার হয়, সেসব দেশের সঙ্গে দুদক সরাসরি যোগাযোগ করতে পারে না। এখানে আইনগত বাধা রয়েছে।


    চেয়ারম্যান বলেন, অর্থপাচারের অপরাধ নিয়ে দুদকের আইনি সক্ষমতা বাড়াতে মন্ত্রিপরিষদে চিঠি পাঠানো হয়েছে। অনুমতি পেলেই দুদক অর্থপাচারের সব অপরাধের অনুসন্ধান এবং তদন্ত করতে পারবে।
    কমিশনার জহুরুল হক বলেন, এ পর্যন্ত দুদক কেবল চুনোপুঁটিই ধরেনি, বিশ্ব রেকর্ড করার মতো রাঘববোয়ালও ধরেছে। দুদক বিভিন্ন দেশ থেকে দুর্নীতিবাজদের সম্পদ জব্দ করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, দুদক ২০২০ সালে আটটি ও ২০২১ সালে ১৩টি মামলা দায়ের ও ২০২০ সালে চারটি ও ২০২১ সালে একটি মামলার চার্জশিট দিয়েছে। যেসব মামলার চার্জশিট হয়েছে আমার বিশ্বাস সেগুলোর ৮০ ভাগ ফলাফল আমাদের পক্ষে আসবে।

    কমিশনার জহুরুল হক আরও বলেন, ‘আমরা করছি না তা না, আমরা এগোচ্ছি। সব খবর আপনাদের কাছে যায় না। অথবা সব খবর আপনারা প্রচার করেন না। আপনারা সব সময় বলেন, দুদক কেবল চুনোপুঁটি ধরে। কিন্তু কতগুলো রাঘববোয়াল ধরেছে, আপনারা দেখেছেন কখনও। দুদক বিশ্ব রেকর্ড করার মতো রাঘববোয়ালও ধরেছে।’

    কমিশনার মোজাম্মেল হক খান বলেন, দুদকের ১৮তম বর্ষপূতিতে আজ বড় ধরনের কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে না। তবে প্রথম পর্বে এ সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়ে আলোচনা সভা করা হয়েছে। আর দ্বিতীয় পর্বে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে সভার আয়োজন করা হয়েছে। আপনাদের গঠনমূলক পরামর্শ দুদকের কার্যক্রমকে আরও গতিশীল করবে।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৭:০৭ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২১ নভেম্বর ২০২২

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি