মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩ বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লোকসানের জাঁতাকলে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বর

পুঁজি নিয়ে শঙ্কিত বিনিয়োগকারীরা

আদম মালেক   |   রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১   |   প্রিন্ট   |   304 বার পঠিত

পুঁজি নিয়ে শঙ্কিত বিনিয়োগকারীরা

লোকসানের জাঁতাকলে পিষ্ট রেইনউইক যজ্ঞেশ্বর অ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেড। কোম্পানিতে রিজার্ভ যেমন ঋণাত্মক, তেমনি শেয়ারপ্রতি আয় ও সম্পদমূল্যও নিম্নমুখী। টানা দুই বছর লভ্যাংশ দিতে পারছে না। অথচ সাড়ে চার মাস আগেও এ জাঙ্ক শেয়ারটির দর ছিল এক হাজার ৬০০ টাকারও বেশি আর সে সময় অনেক মৌলভিত্তিসম্পন্ন শেয়ারের দর ছিল ২০ টাকার ঘরে। এতে বিস্মিত বিনিয়োগকারীরা। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে এ ‘জেড’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটিকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভুক্তি দেয়া হয়, কিন্তু পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি। শেয়ারটির দর এক হাজার ৬০০ টাকা থেকে ৯০০ টাকায় নেমে এসেছে। পুঁজি হারিয়ে বিনিয়োগকারীদের মাথায় হাত। পুঁজি ফিরে পাওয়া নিয়ে তারা শঙ্কিত।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, রেইনউইক যজ্ঞেশ্বরের পরিশোধিত মূলধন ২ কোটি টাকা। অথচ বর্তমানে কোম্পানিটির রিজার্ভ ঘাটতি এক কোটি ৯৮ লাখ টাকা। শেয়ারপ্রতি লোকসান ৮ টাকা ৩০ পয়সা। শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্যে ঘাটতি ৮ টাকা ৭০ পয়সা। ২ বছর ধরে কোনো লভ্যাংশ দিতে পারছে না কোম্পানিটি। কিন্তু গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর এ ‘জেড’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটিকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে অন্তর্ভুক্তির জন্য বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন আদেশ জারি করে। পরদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ কমিশনে কোম্পানিটিকে ‘জেড’ ক্যাটাগরি থেকে এ ক্যাটাগরিতে প্রদর্শন করা হয়। কিন্তু বাজারে অনেক মৌলভিত্তিসম্পন্ন কোম্পানি থাকা সত্ত্বেও এ জাঙ্ক শেয়ারটিকে ‘জেড’ ক্যাটাগরি থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত করায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বিনিয়োগকারীরা। তাদের জিজ্ঞাসা কোম্পানি ও বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কার স্বার্থে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি রেইনউইক যজ্ঞেশ্বরকে ‘জেড’ থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে এনেছেন। কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, কোম্পানির কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে বিএসইসি এ জাঙ্ক শেয়ারকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে জায়গা দিয়েছেন।

এদিকে ১ সেপ্টেম্বর কোম্পানিটির শেয়ার দর ছিল এক হাজার ৫৪৮ টাকা ৭০ পয়সা, পরদিন মার্কেটে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে আসায় ৭০ টাকা দাম বেড়ে দাঁড়ায় এক হাজার ৬২০ টাকা ৭০ পয়সা। ৩ সেপ্টেম্বর শেয়ারটির দর নেমে আসে এক হাজার ৫৯৩ টাকা ২০ পয়সায়। দর কমতে কমতে এখন ৯০০ টাকায় এসেছে। তাই অর্ধেক পুঁজি হারিয়ে বিনিয়োগকারীদের এখন মাথায় হাত। পুঁজি ফিরে পাওয়া নিয়ে তারা শঙ্কিত।

এদিকে প্রকৌশল খাতের আরেক কোম্পানি এস আলম কোল্ডরোল্ড লিমিটেডের মৌলভিত্তি অনেক শক্তিশালী। কোম্পানিটি নিয়মিত লভ্যাংশ দিয়ে আসছে। ২০২০ সালেও ১০ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল। রিজার্ভ ৪৫ কোটি ২১ লাখ টাকা। ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় ১৯ টাকা ৬৫ পয়সা। শেয়ারপ্রতি আয় ৬৫ পয়সা; পিই রেশিও ১৬। কোম্পানিটির শেয়ার মূল্য ২১ টাকা আর ৬ মাস আগে ১০ আগস্ট শেয়ার মূল্য ছিল ২১ টাকা ৩০ পয়সা। এক বছর আগে ১০ ফেব্রুয়ারি দর ছিল ১৯ টাকা ৫০ পয়সা। অথচ বিএসইসি এ ধরনের কোম্পানিতে বিনিয়োগ আকর্ষণে উদ্যোগ না নিয়ে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বরের মতো জাঙ্ক শেয়ারে বিনিয়োগ বৃদ্ধির তৎপরতাকে অনেকে সুনজরে দেখছেন না।

জানতে চাইলে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি বিএসইসির কমিশনার ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ। তিনি বলেন, আমি কিছু জানি না। দেখে বলতে হবে।

রেইনউইক যজ্ঞেশ্বর চিনিকলগুলোর জন্য যন্ত্র প্রস্তুত ও মেরামত কার্যক্রম থেকে আয় করে থাকে। চিনিকলগুলো লোকসানে থাকায় বছরের পর বছর ধরে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বরের পাওনা পরিশোধ করতে পারছে না। এদিকে গত বছর ৬ চিনিকলের উৎপাদন স্থগিত হওয়ায় আরো বিপাকে পড়ে কোম্পানিটি। কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে কার্যাদেশ কম পাওয়ায় এবং বিনোদন পার্ক বন্ধ থাকায় আয় আরো কমেছে। চলতি অর্থবছরে ৪ কোটি ৬৪ লাখ ৬৭ হাজার ২৭২ টাকা কুঋণ সঞ্চিতি করায় ৬ কোটি ৬৭ লাখ ৩ হাজার ৯০ টাকা নিট লোকসান হয়েছে। এ অবস্থায় লোকসান কাটিয়ে কোম্পানিটিকে লাভজনক করতে বিকল্প ব্যবসার সন্ধান করছে বলে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বর সূত্রে জানা যায়।

এদিকে লোকসানের কবলে পড়ে লোকবল ছাঁটাই হচ্ছে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বরে। যেখানে একসময় কর্মকর্তা-কর্মচারী ছিল ২০৮ জন। এখন ৮১ জন ছাঁটাই হয়ে ১২৭-এ নেমে এসেছে। এসব শ্রমিক-কর্মচারীর বেতন ৪৫ লাখ টাকা। কিন্তু এ বেতনও নিয়মিত বেতন না পাওয়ায় পরিবার-পরিজন নিয়ে তারা বর্তমানে মানবেতর জীবন-যাপন করে আসছেন। রেনউইক যজ্ঞেশ্বর অ্যান্ড কোম্পানি (বিডি) লিমিটেডের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে ব্যবস্থাপনা পরিচালক আল ওয়াদুদ আমিন বলেন, চিনিকলগুলোর কাছে বিপুল অঙ্কের টাকা বকেয়া পড়ে আছে। ৬টি চিনিকলের উৎপাদন স্থগিত হওয়ায় আরো বিপাকে পড়ে রেইনউইক যজ্ঞেশ্বর। তবে উৎপাদন স্বাভাবিক হলে প্রতিষ্ঠানটি লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবে।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১০:৫১ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।