শনিবার ২০ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৭ বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রত্যন্ত অঞ্চলে সেবা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে এনআরবিসি ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২০   |   প্রিন্ট   |   301 বার পঠিত

প্রত্যন্ত অঞ্চলে সেবা বাড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে এনআরবিসি ব্যাংক

প্রত্যন্ত অঞ্চলে আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে সেবার পরিধি আরও বিস্তৃত করার উদ্যোগ নিয়েছে পুঁজিবাজারে আসার প্রক্রিয়ায় থাকা এনআরবি কমার্শিয়াল (এনআরবিসি) ব্যাংক লিমিটেড। এজন্য ব্যাংকটি দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, প্রত্যন্ত অঞ্চলের অঞ্চলের কটেজ, অতিক্ষুদ্র ও ক্ষুদ্রশিল্প ও কৃষি খাতকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। পাশাপাশি সেবার মান বাড়ানো এবং সুশাসন আরও জোরদার করতে অফলাইন থেকে অনলাইনের দিকে যাচ্ছে এই ব্যাংক। ব্যাংকটির নিজস্ব আইটি টিমের দক্ষতার উপর ভিত্ত করেই প্রযুক্তিনির্ভর নতুন নতুন প্রোডাক্ট ও সেবা চালু করা হচ্ছে।
বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) সাংবাদিকদের সাথে অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় এনআরবিসি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ব্যাংকের চেয়ারম্যান এসএম পারভেজ তমাল এ তথ্য জানিয়েছেন।
অনুষ্ঠানে ব্যাংকের পরিচালক ও ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান এএম সাইদুর রহমান, উদ্যোক্তা মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মুখতার হোসেন, অতিরিক্তি ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী মো. তালহা, আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান কবীর আহমেদ ও চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার হারুনুর রশিদসহ ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সম্প্রতি আইপিওর অনুমোদন পাওয়া এনআরবিসি ব্যাংক নতুন শেয়ার ইস্যু করে পুঁজিবাজার থেকে ১২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। পুঁজিবাজারে এলে ব্যাংকটির সুশাসন আরও বাড়বে এবং অসংখ্য বিনিয়োগকারী লাভবান হবে বলে আশা প্রকাশ করেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান পারভেজ তমাল। করোনা সংকটেও ব্যাংকটি ভাল ব্যবসা করেছে এবং চলতি বছর শেষে ১২ থেকে ১৪ শতাংশ পর্যন্ত লভ্যাংশ দেওয়া সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বলা হয়, চতুর্থ প্রজন্মের এনআরবি কমার্শিয়াল (এনআরবিসি) ব্যাংক সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষদের ঋণ দিচ্ছে। বেসরকারি ঋণদানকারী সংস্থা এনজিওর মাধ্যমে এই ঋণ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া মানুষের সেবা প্রদানকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বুথ ও উপশাখা স্থাপন করছে ব্যাংকটি। ইতোমধ্যে দেশের ৫৫০টি পয়েন্টে এনআরবিসি ব্যাংক কার্যক্রম চালাচ্ছে। এছাড়া গত তিন বছরে ব্যাংকটি আমানত সংগ্রহ, ঋণ বিতরণসহ আর্থিক সূচকগুলোতে ব্যাপক উন্নতি সাধন করেছে। উল্লেখ্য, গত ২০১৭ সালের ১০ ডিসেম্বর থেকে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
ব্যাংকের চেয়ারম্যান পারভেজ তমাল বলেন, প্রবাসীদের স্বপ্নের ব্যাংক এনআরবিসি। ব্যাংকটির মূল লক্ষ্য মানুষের প্রয়োজনকে অগ্রাধিকার দিয়েসেবা প্রদান করা। ইতোমধ্যে সারাদেশে ৩৬৭ টি উপশাখা চালু করা হয়েছে, যার ৯০ শতাংশ গ্রামে অবস্থিত। গরীব মানুষের সহযোগিতায় ক্ষুদ্র ঋণদেওযা হচ্ছে। ব্যাংকিং সেবা প্রদানের পাশাপাশি বিআরটিএ লাইসেন্স, ই-টিআইএন, অনলাইন জমি রেজিষ্ট্রেশন অর্থ আদায় কার্যক্রমে চতুর্থ প্রজম্মের এনআরবিসি ব্যাংক বছরে প্রায় ৭৪ লাখ মানুষকে সেবা প্রদান করছে। এছাড়া বিদেশি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে আজ অফশোর ব্যাংকিং ইউনিট উদ্বোধন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ব্যাংকটিকে আইটি নির্ভর করে গড়ে তোলা হচ্ছে। এতে ই-কেওয়াইসিসহ, ঋণ প্রক্রিয়া অনেক সহজ হয়েছে। আমরা রিয়েল টাইম সেবা দিয়ে যাচ্ছি এবং আগামীতে আরও সহজ করতে প্রতিশ্রুতবদ্ধ। অফলাইন থেকে ব্যাংকিং সেবা অনলাইনে নেওয়া হচ্ছে। এতে ব্যাংকে কর্পোরেট সুশাসন ও কমপ্লায়েন্স পরিপালন সহজ হবে। আমাদের প্রধান কাজ জনগণের আমানতের সুরক্ষা, স্বচ্ছ বিনিয়োগ এবং বিনিয়োগ থেকে আয় করে তা আমানতকারীদের মুনাফা হিসেবে প্রদান করা। এটির জন্য সব পর্যায়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা নিশ্চিত করা হয়েছে।
পারভেজ তমাল বলেন, দীর্ঘ এক যুগ পর প্রথম কোনো ব্যাংক পুঁজিবাজারে আসতে যাচ্ছে। আমরা বিনিয়োগকারীদের অভিহিত মূল্য তথা ১০ টাকা দরে শেয়ার দিচ্ছি। কিন্তু বাস্তবে প্রতিটি শেয়ারের বুকভ্যালু বা সম্পদ মূল্য ১৫-১৬ টাকা। ফলে পুঁজিবাজারেও আমরা সফল হব। চতুর্থ প্রজন্মের অন্যান্য ব্যাংকও চাইলে এভাবে পুঁজিবাজারে আসতে পারে।
ব্যাংকটির চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘আমাদের ব্যাংকের উদ্দেশ্য ছিল প্রবাসীদের অর্থ দেশের বিনিয়োগে নিয়ে আসা ও রেমিট্যান্স বাড়ানো। কিন্তু আমাদের ব্যাংকের লাইসেন্স দেশের অন্যান্য তফসিলি ব্যাংকের মতো। ফলে প্রবাসীদের কাঙ্ক্ষিত সেবা দেয়ার ক্ষেত্রে আমরা বাধার মুখে পড়ছি। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা চলছে।
অনুষ্ঠানে ব্যাংকের এমডি মো. মুখতার হোসেন বলেন, করোনাকালে আমরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। সরকার ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ ভালোভাবে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এছাড়া ব্যাংক নিজস্ব উদ্যোগেও ঋণ দিচ্ছে। করোনাকালে ২০২০ সালে অনেক কঠিন ছিল। তবে আগামী বছর কেমন হবে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন রয়েছে। ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বাড়তে পারে। তবে পরিকল্পিত ও সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে এনআরবিসি ব্যাংক তুলনামূলক ভালো অবস্থানে রয়েছে। আমরা সতর্কতামূলক নানা পদক্ষেপ নিয়েছি।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৮:০২ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর ২০২০

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।