• শিরোনাম

    প্রাইম ইন্স্যুরেন্সে চুরি, বংশালে আটক চোরের দল

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৪ জুলাই ২০১৯ | ১:৪৭ অপরাহ্ণ

    প্রাইম ইন্স্যুরেন্সে চুরি, বংশালে আটক চোরের দল

    নানান ঘটনায় আলোচিত পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত নন-লাইফ বীমা খাতের প্রতিষ্ঠান প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের টাকা ও আইডিআরএর ল্যাপটপ চুরির ঘটনায় গত রবিবার রাতে রাজধানীর বংশাল এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) চোরের দলনেতা নাসিরসহ তার চার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে। তারা হলো মফিজুর রহমান (৩৬), রাহাত সরকার (২৮), মমিনুল ইসলাম (৩০) ও জামাল (৪০)। সোমবার তাদের আদালতের মাধ্যমে দুদিনের রিমান্ডে নিয়ে ডিবি কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলে নাসিরের কাছ থেকে প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীসহ প্রায় ২০০ প্রতিষ্ঠানে চুরির ঘটনার চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসে।

    বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের সোনার বাংলা ট্রেনের টিটি মমিনুল ইসলাম, উবারচালক মফিজুর রহমান এবং কাপড়ের দোকানি রাহাত সরকারকে নিয়ে একটি সক্রিয় চক্র গড়ে তুলে মো. বদরুল হক নাসির (৪২)। রাজধানীর পান্থপথ, বাংলামোটর ও উত্তরা এলাকার বিভিন্ন বহুতল ভবনে বিদ্যমান ডিজিটাল নিরাপত্তা ব্যবস্থা ফাঁকি দিয়ে চুরির ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে ডিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ এই চক্রের সদস্যদের শনাক্ত করে। তারা চুরি করার আগে দলের সদস্য উবারচালক তার গাড়ি নিয়ে একাধিকবার রেকি করত। এরপর অন্য সহযোগীরা ভবনের ভেতরে পর্যবেক্ষণ করত। তারপর তারা চুরির দিনক্ষণ ঠিক করে চুরির অপারেশনে নামত।’ ‘চুরির সময় নাসিরের সহযোগী হিসেবে তালা ভাঙার বিভিন্ন যন্ত্রপাতির ব্যাগ নিয়ে পাশেই থাকত ট্রেনের টিটি মমিনুল। সাধারণত ট্রেনে একটানা দুই সপ্তাহ ডিউটি করত, পরের দুই সপ্তাহের ছুটির সময় চুরির কাজে সহযোগী হিসেবে দায়িত্ব পালন করত সে। আর ট্রেনে ডিউটি পালনকালে চুরির কাজে বদলি হিসেবে তার দূরসম্পর্কের এক ভাতিজাকে নিয়োগ দিত।’

    ডিবির অতিরিক্ত উপকমিশনার বদরুজ্জামান জিল্লু বলেন, ‘নাসির ও তার সহযোগীরা সপ্তাহে একবার চুরি করলেও শনি ও মঙ্গলবারে চুরি করত না। কারণ হিসেবে নাসিরের ওস্তাদ জাহাঙ্গীরের নিষেধ ছিল বলে জানিয়েছে তারা। ওই দুদিন অশুভ হিসেবে বিবেচনা করত ওস্তাদ জাহাঙ্গীর। এভাবে প্রায় ১৫ বছর ধরে টানা চুরি করে গেলেও কখনো ধরা পড়েনি সে। চট্টগ্রাম বন্দরে চুরির মাধ্যমে এই চক্রের উত্থান হলেও রাজধানীতে চুরি শুরু করেছে গত তিন বছর ধরে। চুরির সময় নাসিরের সহযোগী মমিনুল যন্ত্রপাতির ব্যাগ নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। বাইরে একজন পাহারা দেয়। আর একজন গাড়ি নিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। নাসির কর্মকর্তা বেশে ভুয়া পরিচয়ে অফিসে ঢুকে সহযোগীর জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। যন্ত্রপাতি নিয়ে সহযোগী আসার পর চুরির কাজ শুরু করে সে। দ্রুত সময়ের মধ্যে চুরির মিশন শেষে সটকে পড়ে তারা। নাসির চুরির টাকার বড় একটি অংশ দিয়ে রাজধানীর একটি ক্লাবে গিয়ে নিয়মিত জুয়া খেলে টাকা উড়িয়েছে বলেও জানান ডিবি কর্মকর্তা বদরুজ্জামান।

    উল্লেখ্য যে, চলতি বছরের ১২ মে রাত আনুমানিক ৮ টা ৪০ মিনিটে কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউয়ের ইউনিক হাইটসের দশম তলার প্রাইম ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির কার্যালয়ে ঢুকে স্টিলের ক্যাবিনেটসহ ড্রয়ারের তালা ভেঙ্গে নগদ ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের অডিট কমিটির ৩ টি ল্যাপটপ চুরি করে। এই ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এন্ড হেড অব এইচআর এন্ড এডমিন আমিন উদ্দিন বাদী হয়ে ৪৬১/৩৮০ পেনাল কোড অনুযায়ী ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা মডেল থানায় মামলা দায়ের করে। মামলা নং -২৫। এই সময় অভিযোগের তীর যায় কোম্পানীর সিএফও বাদল চন্দ্র রাজবংশির দিকে। পুলিশ রাজবংশিসহ ৮ কর্মকর্তা কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ।

     

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    পারিবারিক বলয়ে বন্দী সানলাইফ

    ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    ডিসেম্বর ২০১৯
    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    « নভেম্বর    
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি