বুধবার ২৯ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

বিআইপিডির এফডিআরের কোটি টাকা আটকে রেখেছে ফারইস্ট ফাইন্যান্স 

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪   |   প্রিন্ট   |   96 বার পঠিত

বিআইপিডির এফডিআরের কোটি টাকা আটকে রেখেছে ফারইস্ট ফাইন্যান্স 

দীর্ঘদিন আগে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট ফর প্রফেশনাল ডেভেলপমেন্টের (বিআইপিডি) ছয়টি এফডিআর অ্যাকাউন্টের এক কোটি আট লাখ পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড পরিশোধ করছে না বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এমনকি লভ্যাংশও প্রদান করছে না।

শনিবার (২০ এপ্রিল) রাজধানীর পল্টন টাওয়ারে ইকনোমিক রিপোর্টার্স ফোরামে আয়োজিত ‘‘ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের অনিয়ম, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনীহা ও বিআইপিডির অসহায়ত্ব” শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করে বিআইপিডি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিআইপিডির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মোশফেকুল করীম।
লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বিআইপিডি ২০১৬ হতে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডে সর্বমোট এক কোটি আট লাখ পঁয়ত্রিশ হাজার টাকার ছয়টি এফডিআর অ্যাকাউন্ট খুলেছিল। সবকটি এফডিআর ২৮/১২/২০১৮ হতে ৩০/০৫/২০১৯ এর মধ্যে বিভিন্ন তারিখে মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়া সত্ত্বেও ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড বিআইপিডির কোন অর্থ পরিশোধ করেনি। এমনকি লভ্যাংশও প্রদান করছে না। এ বিষয়ে এ পর্যন্ত ছাপ্পান্নটি পত্র প্রদান করা সত্ত্বেও তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করে নি; এমন কি ২০২০ সালের পরে কোন পত্রের জবাবও দেয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের শরণাপন্ন হয় বিআইপিডি। ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের বিষয়টি সমাধানের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্ণর, ডেপুটি গভর্ণর এবং ফিন্যান্সিয়াল ইনটিগ্রিটি অ্যান্ড কাস্টমার সার্ভিস বিভাগ বরাবর ছত্রিশটি পত্র ও ইমেইল প্রেরণ করে বিআইপিডি। সর্বপ্রথম ২০১৯ সালের ১১ জুন এবং সর্বশেষ ২০২৪ সালের ১৭ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বরাবর পত্র দেয়া হয়। কিন্ত অদ্যাবধি এসব চিঠির কোন জবাব পাওয়া যায়নি বলে জানায় বিআইপিডি।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ২০২২ সালের ২০ ডিসেম্বর এবং ২০২৩ সালের ২ আগস্ট অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড কর্তৃক বিআইপিডির অর্থ পরিশোধ না করার বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংককে পত্র প্রদান করে। এই পত্র প্রদানের পরে আট মাসের অধিক সময় অতিবাহিত হলেও বাংলাদেশ ব্যাংক এ ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, চলতি বছরের ১৯ ফেব্রুয়ারি সরাসরি সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক (ডিএফআইএম) মো. আমির উদ্দিন বিআইপিডির প্রতিনিধিকে বলেন, ‘কোম্পানি ম্যাটার নং-২৪৩/২০২০ এর প্রেক্ষিতে মহামান্য আদালতের ১৭/০১/২০২১ তারিখের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডে রক্ষিত বিআইপিডির আমানত অবরুদ্ধ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এ বক্তব্য আদৌ যুক্তিযুক্ত ও গ্রহণযোগ্য নয় বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করে বলা হয়, উক্ত মামলাটি ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লি. এবং পিএফআই প্রপারটিজ লি.-এর মধ্যে সংগঠিত হয়েছে। এই মামলার সাথে বিআইপিডি কোনো ভাবে জড়িত নয় এবং আদালতের আদেশে বিআইপিডির হিসাব ফ্রিজ করার বিষয়ে কোন নির্দেশনা নেই।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বলা হয়, সর্বপ্রথম সিআইসি কর্তৃক ইস্যুকৃত একটি প্রজ্ঞাপনের অজুহাতে (প্রজ্ঞাপন নং-০৮.০১.০০০০.০৯৮.৩৫.১৩১. ১৭.৬২৬ (৫৫), তাং ৩১ অক্টোবর, ২০১৮) ফারইস্ট ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড বিআইপিডির অর্থ আটক করে রেখেছিল। কিন্তু পরবর্তীতে সেন্ট্রাল ইনটেলিজেন্স সেল (সিআইসি) কর্তৃক ইস্যুকৃত গত ০৭.০৩.২০২৩ তারিখে “আয়কর অধ্যাদেশের ১৯৮৪ এর ধারা ১১৬ এ- এর সাব-সেকশন ২ ও ৩ এর মর্মার্থ অনুযায়ী প্রযোজ্য আইননুগ কাযক্রম গ্রহণ করা যেতে পারে” এই মর্মে পত্র প্রেরণ করে। সংশ্লিষ্ট আইন অনুসারে কথিত নির্দেশনার সময়সীমা বহু পূর্বেই অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও ফারইস্ট ফাইন্যান্স বিআইপিডির অর্থ পরিশোধে কোন উদ্যোগ গ্রহণ করে নি।

এছাড়া বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন ২০২২ সালের ২৩ মার্চ ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডকে বিআইপিডির প্রাপ্য অর্থ প্রদানের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়ে পত্র প্রেরণ করে। ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড এই নির্দেশনাও অগ্রাহ্য করেছে।

বিআইপিডির প্রাপ্য বিপুল পরিমাণ অর্থ ফারইস্ট ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড পাঁচ বছরের অধিক সময় ধরে আটকে রাখায় বিআইপিডির মতো একটি সম্ভাবনাময় প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিআইপিডির মহাপরিচালক কাজী মো. মোরতুজা আলী এসিআইআই, বিআইপিডির একাডেমিক কাউন্সিলের সম্মানিত সদস্য এ কে এম এহসানুল হক এফসিআইআই এবং বিআইপিডির কর্মকর্তাগণ।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৮:০৫ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

রডের দাম বাড়ছে
(11237 বার পঠিত)

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।