• ব্যাংকিং সেবায় সাড়ে ৩ হাজার পোশাককর্মী

    বিবিএনিউজ.নেট | ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২:৫৬ অপরাহ্ণ

    ব্যাংকিং সেবায় সাড়ে ৩ হাজার পোশাককর্মী
    apps

    সুইজারল্যান্ডভিত্তিক উন্নয়ন সংস্থা সুইসকনট্যাক্ট ও মেটলাইফ ফাউন্ডেশনের যৌথ অর্থায়নে পরিচালিত হচ্ছে ‘সারথি- আর্থিক অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্প। এর আওতায় অনন্ত জিন্সওয়্যার লিমিটেড নামে একটি পোশাক কারখানার বাইরে সিটি ব্যাংকের এটিএম বুথ স্থাপন করা হয়েছে। এ পদক্ষেপের মাধ্যমে ব্যাংকিং সেবার আওতায় এসেছেন কারখানাটির সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক। বুধবার মেটলাইফ ফাউন্ডেশন থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

    বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সারথি প্রকল্পের আওতায় অনন্ত জিন্সওয়্যার লিমিটেডের কর্মীদের আর্থিক অন্তর্ভুক্তিকরণের ধারাবাহিকতায় এটিএম মেশিন ব্যবহারের এ পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বেশ কয়েকটি ধাপে কর্মীদের প্রাতিষ্ঠানিক আর্থিক লেনদেন তথা ব্যাংকিং সেবার সুবিধা নিয়ে প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দেয়া হয়। এর মধ্যে নিরাপদ আর্থিক লেনদেন, সংকটকালীন উন্নত আর্থিক ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি সম্পর্কিত ধারণা দেয়া হয়। এতে তারা ব্যাংকের মাধ্যমে আর্থিক লেনদেনের বিষয়গুলো অনুধাবন করতে সক্ষম হন।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    তৈরি পোশাক শ্রমিকদের জন্য বিভিন্ন ব্যাংকিং পণ্য সহজলভ্য করতে দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর সঙ্গেও কাজ করছে সারথি। প্রশিক্ষণ শেষে সফলতার সঙ্গে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা এবং এটিএম মেশিন স্থাপন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর কর্মীরা এটিএম বুথ থেকে চলতি মাসের বেতনের টাকা তুলেছেন। কারখানা-সংলগ্ন এটিএম বুথটি ছাড়াও সহজেই আর্থিক সেবা পাওয়া যাবে, এমন কাছাকাছি জায়গাগুলোয় স্থাপিত বুথ সম্পর্কেও কর্মীদের অবহিত করা হয়েছে।

    গত বছরের ১৯ এপ্রিল ‘সারথি- আর্থিক অন্তর্ভুক্তির মাধ্যমে উন্নয়ন’ প্রকল্পটি উদ্বোধন করা হয়। ৩০ মাসব্যাপী এ প্রকল্পের মেয়াদকাল জানুয়ারি ২০১৮ থেকে জুন ২০২০ পর্যন্ত।


    সুইসকনট্যাক্ট এবং মেটলাইফ ফাউন্ডেশনের যৌথ অর্থায়নে পরিচালিত প্রকল্পটির লক্ষ্য হচ্ছে, প্রকল্প মেয়াদের মধ্যে অন্তত ১৫টি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনা। যাতে ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে শ্রমিকরা বেতন পান এবং আর্থিক ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত মৌলিক শিক্ষা লাভের সুবিধা উপভোগ করতে পারেন।

    ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত পরীক্ষামূলকভাবে ১ হাজার ১০০ জন তৈরি পোশাক কর্মীকে ব্যাংকিং সুবিধার আওতায় আনা হয়। এখন প্রকল্পটির মাধ্যমে ৬০ হাজার কর্মীর কাছে প্রাতিষ্ঠানিক ব্যাংকিং সুবিধা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় আর্থিক সাক্ষরতা নিশ্চিত এবং সচেতনতামূলক কর্মসূচি পরিচালনার মাধ্যমে প্রায় দুই লাখ পোশাক শ্রমিক এবং সংশ্লিষ্ট জনগোষ্ঠীকে নিয়ে কাজ করা হয়।

    প্রসঙ্গত, ১৯৭৬ সালে প্রতিষ্ঠার পর সামাজিক দায়বদ্ধতা ও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছে মেটলাইফ ফাউন্ডেশন। ২০১৮ সালের শেষ অবধি মেটলাইফ ফাউন্ডেশন ৮২ কোটি ২০ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি অর্থ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অনুদান হিসেবে দিয়েছে। পাশাপাশি সমাজে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার লক্ষ্যে বেশকিছু প্রতিষ্ঠানে ৮ কোটি ৫০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে। এরই মধ্যে নিম্ন আয়ের মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে ৪২টি দেশের ৬০ লাখের বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে গেছে মেটলাইফ।

    মেটলাইফ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশে ১৫টি প্রকল্পে মোট ১ কোটি ৪০ লাখ ডলার অনুদান দিয়েছে। এতে এ পর্যন্ত পাঁচ লক্ষাধিক নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষ উপকৃত হয়েছে। ভবিষ্যতে প্রকল্পের ব্যাপ্তি বাড়ানোর মাধ্যমে আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছানোর লক্ষ্যে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি