বুধবার ১৯ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৫ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মার্চের আগের ঋণের সুদ স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   |   সোমবার, ০৪ মে ২০২০   |   প্রিন্ট   |   388 বার পঠিত

মার্চের আগের ঋণের সুদ স্থগিত

করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীক ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় সব ধরণের ব্যাংক ঋণের সুদ আদায় দুই মাস স্থগিত করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এ সুবিধা চলতি বছরের ৩১ মার্চের আগে নেওয়া ঋণের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। আর ১ এপ্রিলের পরে বিতরণ করা ঋণের যথাযথ সুদ আদায় করতে পারবে ব্যাংক। আজ সোমবার (৪ মে) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে।
এতে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট ব্যবসায়ীক পরিস্থিতি বিবেচনায় উক্ত সার্কুলারের মাধ্যমে ব্যাংকের সব প্রকার ঋণ/বিনিয়োগের ওপর চলতি বছরের ১ এপ্রিল হতে ৩১ মে পর্যন্ত সময়ে আরোপিত ও আরোপযোগ্য সুদ বা মুনাফা ‘সুদবিহীন ব্লকড হিসাবে’ স্থানান্তর করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত স্থানান্তরিত সুদ গ্রহীতার নিকট হতে আদায় করা যাবে না এবং এরূপ সুদ/মুনাফা ব্যাংকের আয়খাতে স্থানান্তর করা যাবে না মর্মেও নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।
নতুন নির্দেশনায়, ঋণ, বিনিয়োগের ওপর আরোপিত ও আরোপযোগ্য সুদ বা মুনাফা ব্লকড হিসাবে এবং আয়খাতে স্থানান্তরের বিষয়ে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে। চলতি বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত গ্রাহক যেসব ঋণ প্রদান করা হয়েছে তাদের দুই মাসের সুদ স্থগিদ হবে। ১ এপ্রিল হতে নতুনভাবে বিতরণ বা উত্তোলন করা ঋণের ক্ষেত্রে এ নির্দেশনা প্রযোজ্য হবে না। অর্থাৎ ১ এপ্রিলের পর বিতরণ করা ঋণের সুদ যথাযত নিয়মে আদায় করতে পারবে।
এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে। ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
এর আগে রোববার (৩ মে) সব ধরণের ঋণের সুদ দুই মাস স্থগিত করে সার্কুলার জারি করে বাংলাদেশ ব্যাংক।
এতে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বাংলাদেশের সম্ভাব্য অর্থনৈতিক প্রভাব মোকাবিলায় দেশের অর্থনৈতিক কর্মকাণাড পুনরুজ্জীবিতকরণ ও গতিশীল রাখার জন্য ব্যাংকিং ব্যবস্থার মাধ্যমে স্বল্প সুদে ঋণ সুবিধা প্রদান সহ বিভিন্ন ধরনের আর্থিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। তবে এই মুহূর্তে সকল প্রকার ঋণ বা বিনিয়োগের উপর ১ এপ্রিল থেকে ৩১ মে পর্যন্ত এই দুই মাসের সুদ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত গ্রাহকদের কাছ থেকে কোনো সুদ আদায় করা যাবে না। এরূপ সুদ ব্যাংকের আয় খাতেও স্থানান্তর করা যাবে না।
কোন ব্যাংক ইতোমধ্যেই কোন ঋণের সুদ আয় খাতে স্থানান্তর করে থাকলে তা রিজার্ভ এন্ট্রির মাধ্যমে সমন্বয় করতে হবে। ব্লকড হিসাবে রক্ষিত মুনাফা সমন্বয়ের বিষয়ে পরবর্তীতে অবহিত করা হবে।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১০:৫১ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৪ মে ২০২০

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

রডের দাম বাড়ছে
(11251 বার পঠিত)

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।