বৃহস্পতিবার ৩০ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনার প্রভাব

শিল্প স্থাপনে মন্দা কাটানোর উদ্যোগ নিতে হবে

বিবিএনিউজ.নেট   |   রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২০   |   প্রিন্ট   |   302 বার পঠিত

শিল্প স্থাপনে মন্দা কাটানোর উদ্যোগ নিতে হবে

বৈশ্বিক মহামারী করোনার প্রভাবে দেশের অধিকাংশ খাতের ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবিরতা বিরাজ করছে। এর প্রভাবে বিনিয়োগে দেখা দিয়েছে ভীষণ মন্দা। অভ্যন্তরীণ ঋণপ্রবাহ কমে গেছে। কমেছে বেসরকারি খাতের ঋণও। সরকারি বিনিয়োগেও মন্দা। ফলে নতুন শিল্প স্থাপনের গতি মন্থর হয়ে পড়েছে। এতে নতুন কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র তৈরি কমে গেছে। চাহিদা কম থাকায় সচল শিল্পগুলোও সক্ষমতা অনুযায়ী উৎপাদন চালু রাখতে পারছে না। এই অবস্থা কাটানোর উদ্যো নিতে হবে। না হলে সংকট গভীর হওয়ার আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

বাংলাদেশ বাংকের প্রতিবেদনে জানা যায়, করোনার প্রভাবে সাম্প্রতিক সময়ে দেশের সার্বিক ঋণপ্রবাহ কমে গেছে। সরকারি খাতে বিনিয়োগ কমার পাশাপাশি হ্রাস পেয়েছে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ। সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) যেমন কমেছে, তেমনই আগের চেয়ে হ্রাস পেয়েছে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি বিদেশি ঋণ। পুঁজিবাজারে বিদেশি বিনিয়োগও কমে গেছে। শিল্প খাতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর দীর্ঘমেয়াদি ও চলতি মূলধন এই দুই ধরনের ঋণপ্রবাহে মন্দা দেখা দিয়েছে। ফলে শিল্পখাতে টাকার প্রবাহ কমেছে। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে ব্যবসা-বাণিজ্যসহ শিল্প খাতে।

এদিকে কবে নাগাদ করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আসতে পারে, সে ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো সুনির্দিষ্ট দিকনির্দেশনা পাওয়া যায়নি। ফলে বিশ্বব্যাপী ব্যবসা-বাণিজ্যে অস্থিরতা বিরাজ করছে। কাজের ক্ষেত্র সংকোচিত হওয়ায় ভোক্তার আয় কমেছে। এর প্রভাবে কমেছে পণ্যের চাহিদা, কমেছে উৎপাদন। এ কারণে বিনিয়োগকারীরা এখন নতুন বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হচ্ছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রতি প্রান্তিকে গড়ে শিল্প ঋণ বেড়েছে ১৩ থেকে সাড়ে ১৭ শতাংশ হারে। গত অর্থবছরে শেষ প্রান্তিকে শিল্প ঋণ বেড়েছিল প্রায় ১৩ শতাংশ। চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে বেড়েছে ৯ দশমিক ৩ শতাংশ।

নতুন শিল্প স্থাপনে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন মেয়াদি ঋণ। গত দুই অর্থবছরে প্রতি প্রান্তিকে মেয়াদি ঋণ বেড়েছিল গড়ে ১৫ থেকে ২২ শতাংশ হারে। গত অর্থবছরের শেষ প্রান্তিকে প্রায় ১৩ শতাংশে দাঁড়ায়। চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে তা আরও কমে ১০ শতাংশে দাঁড়ায়। এমন পরিস্থিতিতে শিল্প স্থাপনের ক্ষেত্রে যে মন্দা চলছে, সেটি কাটিয়ে ওঠার উদ্যোগ নিতে হবে।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১১:১৫ পূর্বাহ্ণ | রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০২০

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।