• শিরোনাম

    শেয়ার ও টাকা ফিরে পাবেন ক্রেস্টের গ্রাহকরা : ডিএসইর এমডি

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৯ জুন ২০২০ | ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

    শেয়ার ও টাকা ফিরে পাবেন ক্রেস্টের গ্রাহকরা : ডিএসইর এমডি

    শেয়ারবাজারে হঠাৎ বন্ধ হয়ে পড়া ব্রোকারেজ হাউজ ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের গ্রাহকরা তাদের শেয়ার ও টাকা ফেরত পাবেন বলে আশ্বাস দিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ।
    রোববার (২৮ জুন) এক সংবাদ সম্মেলনে এই আশ্বাস দেন ডিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ছানাউল হক।
    এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন,ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের গ্রাহকদের শেয়ার ও টাকা ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে তারা প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেবেন।
    দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের শেয়ার ও টাকা ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

    উল্লেখ,গত সপ্তাহে হঠাৎ ডিএসইর সদস্য প্রতিষ্ঠান ব্রোকারহাউজটির সব অফিস বন্ধ করে দিয়ে এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহিদ উল্লাহসহ পরিচালকরা আত্মগোপন করেন। তারা পালিয়ে বিদেশ চলে গেছেন বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। এতে প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এমনিতেই আস্থার সংকটে থাকা পুঁজিবাজারে এ ঘটনা আরও অনাস্থার জন্ম দিতে পারে এমন আশংকায় দ্রুত তৎপর হয় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। গত বৃহস্পতিবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি দিয়ে ক্রেস্ট সিকিউরিটিজ এবং এর মালিকদের নামে থাকা সব ব্যাংক হিসাব জব্দ করার অনুরোধ জানানো হয়।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    সংবাদ সম্মেলনে ডিএসইর এমডি কাজী ছানাউল হক বলেন, তারা বিষয়টিকে খুবই গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন। বিএসইসিও এই বিষয়ে কঠোর অবস্থানে।

    তিনি বলেন, ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের মালিকদের ব্যাংক হিসাব স্থগিত করা হয়েছে এবং এর মালিকের বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার পথও বন্ধ করা হয়েছে।


    তিনি আরও বলেন, তাদের ধারণা ক্রেস্ট সিকিউরিটিজের মালিক বিদেশে পালিয়ে যেতে পারেনি। তিনি দেশেই আছেন। শিগগির আইনশৃঙ্খলারক্ষাবাহিনী তাকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হবে।

    তিনি জানান, তারা মনে করেন ক্রেস্টের মালিক যদি গ্রাহকদের টাকা সরিয়েও থাকেন, তার পরিমাণ বেশি হবে না। এই টাকা ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব। ব্রোকারহাউজটিতে নিরীক্ষার পর যদি দেখা যায়, গ্রাহকের টাকার ঘাটতি আছে তাহলে প্রতিষ্ঠানটির সদস্য পদ ও ট্রেক বিক্রি করে তাদের টাকা ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

    সোমবার প্রতিষ্ঠানটির গ্রাহকদেরকে ডিএসইতে যোগাযোগ করে তাদের পাওনার হিসাব দেওয়ার জন্য সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। তাতে দালিলিক প্রমাণসহ পাওনার হিসাব দেওয়ার জন্য ১৫ দিন সময় বেঁধে দেওয়া হবে।

    ডিএসইর এমডি জানান, ব্রোকারেজ হাউজটির অধীনে প্রায় ২১ হাজারের মতো একাউন্ট রয়েছে, তাতে যে শেয়ার রয়েছে, তার বাজার মূল্য ৮২ কোটি টাকার মতো।

    ক্রেস্টের দায়দেনার হিসাব ইতোমধ্যে শুরু করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা সিডিবিএলের (সেন্ট্রাল ডিপসেটরি বাংলাদেশ লিমিটেড) কাছে যে তথ্য পেয়েছি তাতে দেখা যাচ্ছে, এই ব্রোকারেজ হাউজে প্রায় ২১ হাজারের মতো একাউন্ট আছে। আর এর মধ্যে যে শেয়ার আছে, তার বাজার মূল্য ২৫ জুনের হিসাব অনুয়ায়ী ৮২ কোটি টাকা।”

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৯ জুন ২০২০

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি