• শিরোনাম

    সায়েদাবাদে অলস সময় কাটাচ্ছেন পরিবহন কর্মীরা

    আদম মালেক | ০৩ জুন ২০১৯ | ১২:১১ পূর্বাহ্ণ

    সায়েদাবাদে অলস সময় কাটাচ্ছেন পরিবহন কর্মীরা

    অতীতে বাস টার্মিনালগুলোতে ঈদে ঘরমুখো মানুষের উপচে পড়া ভিড় থাকলেও এবার সায়েদাবাদ টার্মিনালে যাত্রীর চাপ নেই বললেই চলে। সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে বিভিন্ন কোম্পানীর বাস। টিকিট বিক্রি কম। হাঁকডাক দিয়েও যাত্রী পাওয়া যায় না। কোনো কোনো বাস দিনের পর দিন স্টেশনে পড়ে আছে। তাই তাই এক রকম অলস সময় পার করছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

    টার্মিনালের বিভিন্ন কাউন্টারে কথা বলে জানা যায়, দক্ষিণবঙ্গের বেশির ভাগ যাত্রী মহাসড়কের পরিবর্তে লঞ্চ কিংবা ট্রেনে যাতায়াত করছেন। বিরূপ আবহাওয়ার কথা চিন্তাও করেন না লঞ্চে ভ্রমণকারীরা। বরিশাল, পটুয়াখালী, কুয়াকাটা, পিরোজপুর, বরগুনা, বাগেরহাটের যাত্রীরা বেশিরভাগই লঞ্চে যাতায়াত করেন। আবার অন্যদিকে, খুলনা, গোপালগঞ্জ ও বরিশালের কিছু যাত্রী লোকাল বাসে করে মাওয়া ঘাট পর্যন্ত গিয়ে, ফেরি পার হয়ে ওপাড় থেকে ফের লোকাল বাসে করে গন্তব্যে যান। তবে বৃস্পতিবার অনেক যাত্রীর বাড়ি চলে যাওয়াকেও কেউ কেউ যাত্রী ঘাটতির একটি কারণ বলে মনে করেন। তবে আগামী কাল সরকারী বেসরকারী অফিসসহ গার্মেন্ট্স ছুটি হলে যাত্রীর চাপ পড়তে পারে বলে মনে পরিবহন কর্মীরা।
    ঢাকা থেকে লক্ষ্মীপুরগামী জোনাকি পরিবহনের কর্মী মো. আকবর হোসেন জানান, যাত্রী নেই। বাস খালি পড়ে আছে। আগে ঈদের সময় কাউন্টারের বাইরে দীর্ঘ লাইন থাকতো। এবার বাইরেতো দূরের কথা গোটা কাউন্টারই খালি পড়ে আছে।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    ঢাকা থেকে সিলেটগামী এমরান এন্টারপ্রাইজের কর্মী রাকিব হোসেন এহেন পরিস্থিতিতে হতাশ। তিনি বলেন, আমাদের সামনে সিলেটগামী এস আর এন্টারপ্রাইজ ১ ঘন্টা আগে সিরিয়াল দিয়েও যাত্রী পাচ্ছে না। আমরা আজ গাড়ি ছাড়তে পারব কিনা তা নিয়েও সন্দিহান। হয়তো গাড়ী ভিতরে রেখে দিতে হবে।

    সিলেটগামী মিতালী এন্টার প্রাইজের কমীদেরও অসন্তোষ। তারা বলেন, আমাদের বাস সিলেট আসা যাওয়া করতে ১২ হাজার টাকা খরচ। গত কাল তেল ও রাস্তার খরচ পরিশোধের পর মালিককে ৫শ টাক দিতে পেরেছি। আমরা কিছুই পাইনি।
    নোয়াখালীমুখী কে কে এন্টাপ্রাইজের কাউন্টার ব্যবস্থাপক সপন জানান,আমাদের এখানে কে কে এন্টারপ্রাইজ, হিমাচল ও একুশে এন্টারআইজের টিকিট বিক্রি হয়। ৩ টি পরিবহনের টিকিট থাকলেও সকাল ৮ থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত মাত্র ১টি টিকিট বিক্রি হয়। যাত্রীসেবা সুপার বাসটি যাত্রীর অভাবে ৫ দিন টার্মিনালে পড়ে আছে। পরিবহন শ্রমিকরা ভাল নেই।

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ১২:১১ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ০৩ জুন ২০১৯

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    হর্ন হুদাই বাজায় ভুদাই

    ০৫ জানুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি