রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১২ ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে ইফাদের শীর্ষ প্রকল্প

বিবিএনিউজ.নেট   |   রবিবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯   |   প্রিন্ট   |   477 বার পঠিত

বাংলাদেশে ইফাদের শীর্ষ প্রকল্প

বিশ্বব্যাপী ‘ইন্টারন্যাশনাল ফান্ড ফর এগ্রিকালচারাল ডেভেলপমেন্টের’ (আইএফএডি বা ইফাদ) ২৫০টি প্রকল্প রয়েছে। এর মধ্যে শীর্ষ ১০টির মধ্যে তিনটি প্রকল্পই হচ্ছে বাংলাদেশের। পাশাপাশি প্রথম স্থানটিও বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়িত উপকূলীয় জলবায়ু স্থিতিস্থাপক অবকাঠামো প্রকল্প বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের কান্ট্রি ডিরেক্টর ওমর জাফর।

বৃহস্পতিবার শেরেবাংলা নগরে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে তিনি এসব কথা বলেন। ওমর জাফর বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে আইএফএডি’র ১.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিয়োগ রয়েছে, যা বিশ্বব্যাপী আইএফএডি’র তৃতীয় বৃহত্তম বিনিয়োগ। বিশ্বব্যাপী ইফাদের ২৫০টি প্রকল্পের শীর্ষ ১০টির মধ্যে বাংলাদেশের তিনটি প্রকল্প রয়েছে এবং প্রথম স্থানটিও বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়িত উপকূলীয় জলবায়ু স্থিতিস্থাপক অবকাঠামো প্রকল্প।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে বাংলাদেশে সাতটি চলমান প্রকল্প রয়েছে যা পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন, কৃষি মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, পানি উন্নয়ন বোর্ড বাস্তবায়ন করবে। আরও দুটি প্রকল্পের নকশা বাস্তবায়নাধীন। ওমর জাফর প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন অগ্রগতি সম্পর্কে মন্ত্রীকে অবহিত করেন এবং তাদের অংশীদারিত্ব আরও বাড়ানোর বিষয়ে দিকনির্দেশনার আশা ব্যক্ত করেন।

সাক্ষাৎকালে অর্থমন্ত্রী বলেন, কৃষি উন্নয়নে সহায়তার জন্য আন্তর্জাতিক সংস্থা হিসেবে অত্যন্ত সহজ শর্তে কৃষি উন্নয়নে আন্তর্জাতিক কৃষি উন্নয়ন তহবিল (ইফাদ)- এর সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ঋণ ও অনুদান প্রদান করার সুনাম রয়েছে। বাংলাদেশের সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অভূতপূর্ব সাফল্যের পর ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ইফাদ কার্যকর সহায়তা প্রদানে কাজ করে যাচ্ছে। ইফাদ বাংলাদেশ সরকারের দীর্ঘ ও মধ্য মেয়াদে বাস্তবায়নের নিমিত্ত প্রণিত কৌশলগত পরিকল্পনার সাথে সাহাজ্যকরণের মাধ্যমে দেশের আর্থ-সামজিক উন্নয়নসহ পল্লী উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন এবং পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়নে বিভিন্ন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

ওমর জাফর বাংলাদেশে ইফাদের উদ্বোধনের জন্য অপেক্ষমান স্থায়ী আঞ্চলিক কার্যালয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রীকে প্রধান অতিথি করার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ পরিপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী বলেন, এটি খুবই ভালো পদক্ষেপ। স্থায়ী আঞ্চলিক কার্যালয়ের মাধ্যমে ইফাদের কার্যাক্রম আরও বেগবান হবে এবং নতুন মাত্রা পাবে। কাজের পরিসর বাড়বে।

তিনি বলেন, চলতি অর্থবছরেই আমরা ৮ দশমিক ২৫ শতাংশ থেকে ৮ দশমিক ৩০ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনের প্রত্যাশা করছি, যা ২০২৪ সাল নাগাদ দাঁড়াবে ১০ শতাংশ এবং সেটা অব্যাহত থাকবে। বিশ্বে যে কয়েকটি দেশের রপ্তানি আয় খুব দ্রুত বাড়ছে, তার মধ্যে বাংলাদেশ একটি। বাংলাদেশের মানুষের ঋণ জিডিপি অনুপাতে যেকোনো দেশের তুলানায় কম। ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও জনসংখ্যা বৃদ্ধি সত্ত্বেও খাদ্য নিরাপত্তায় বাংলাদেশ একটি প্রশংসনীয় অগ্রগতি অর্জন করেছে।

তিনি আরও বলেন, স্বাদু পানির মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বের চতুর্থ স্থানে রয়েছে। বাংলাদেশ এমডিজি অর্জনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে এবং ইতোমধ্যে ২০২১ সাল নাগাদ মধ্যম আয়ের দেশের স্থিতি অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের লক্ষ্য অর্জনের জন্য সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা সম্বলিত এসডিজি মূলধারার দিকে অগ্রসর হয়েছে। বাংলাদেশে ফল ও সবজী যেমন- আম, আলু, আখ ইত্যাদি প্রক্রিয়াকরণের ক্ষেত্রে ইফাদের জন্য বড় সম্ভাবনা রয়েছে।

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ১:৩৯ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

রডের দাম বাড়ছে
(11111 বার পঠিত)

এ বিভাগের আরও খবর

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।