রবিবার ১৬ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ২ আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

লিটারে ৯ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দাম

বিবিএ নিউজ.নেট   |   শনিবার, ২৯ মে ২০২১   |   প্রিন্ট   |   205 বার পঠিত

লিটারে ৯ টাকা বাড়ল সয়াবিন তেলের দাম

দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ দামের রেকর্ড গড়েছে ভোজ্যতেল। গত ২৭ মে সয়াবিন তেলের দাম লিটারপ্রতি ৯ টাকা বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে তেল পরিশোধন ও বিপণনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন।
বর্তমানে বাজারে প্রতিলিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের ১৪৪ টাকা। নতুন দাম অনুযায়ী প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের মূল্য ১৫৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সে হিসেবে প্রতিলিটারে দাম বাড়ল ৯ টাকা।

গত মাসে ৫ টাকা দর বৃদ্ধির পর আবার ৩ টাকা কমানোর সিদ্ধান্ত নেয় সংগঠনটি। তখন প্রতিলিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৪৪ টাকা মূল্য নির্ধারণ করা হয়। ফলে সায়াবিন তেলের লিটারপ্রতি মূল্য এক লাফে ৯ টাকা বৃদ্ধি করা হলো। তেলের দাম বাড়িয়ে নতুন মূল্য তালিকাও জানিয়েছে সংগঠনটি। নতুন দামে এখন থেকে এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৫৩ টাকা, পাঁচ লিটারের এক বোতল তেল দাম পড়বে ৭২৮ টাকা। খোলা সয়াবিন তেল লিটারপ্রতি ১২৯ টাকা ও পাম সুপার তেল ১১২ টাকা টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

সংগঠনের সচিব মো. নুরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০২০ সালের জুন মাসের পর থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের অস্বাভাবিক ঊর্ধ্বগতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। যেহেতু ভোজ্যতেলের মোট চাহিদার ৯৫ ভাগেরও বেশি আমদানির মাধ্যমে পূরণ করা হয় তাই সাম্প্রতিক সময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে স্থানীয় বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে সায়াবিন তেলের মূল্য যতটা বেড়েছে স্থানীয় বাজারে ততটা বাড়েনি।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে নিয়মিতভাবে দেশীয় উৎপাদন, আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি, আমদানি পরিস্থিতি এবং স্থানীয় বাজার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বিগত এক বছরে আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১৬০ শতাংশ। একই সময়ে স্থানীয় দেশীয় বাজারে মূল্য বৃদ্ধির পরিমাণ প্রায় ৩৫ শতাংশ।

সাম্প্রতিক সময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে অতিমাত্রায় মূল্য বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে গত ১৯ মে লিটারপ্রতি ১৩ টাকা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে বিষয়টি অনুমোদনের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়।

ইতোপূর্বে পবিত্র মাহে রমজান এবং কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ভোক্তা সাধারণের ক্রয়ক্ষমতা বিবেচনা করে অ্যাসোসিয়েশন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর পর্যন্ত প্রতি লিটারে ৩ টাকা ছাড়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রস্তাবিত মূল্য বৃদ্ধি করা না হলে অ্যাসোসিয়েশনের ব্যবসায়ীদের পক্ষে ব্যবসা চালিয়ে যাওয়া দুরূহ হয়ে পড়বে বলে দাবি করা হয়।

বর্তমানে বাংলাদেশের ভোজ্যতেলের মোট চাহিদার ৬৫ শতাংশ পাম অয়েলের মাধ্যমে পূরণ হয়, যার পুরোটাই আমদানির মাধ্যমে বাজারে সরবরাহ করা হয়। পাম অয়েলের ইনবন্ড ও আউটবন্ড মূল্য গতমাসে কিছুটা হ্রাস পাওয়ার প্রেক্ষিতে সেই অনুসারে পাম অয়েলের বাজারমূল্য হ্রাস করা হয়েছে। চলমান কোভিড-১৯ মহামারির কথা মাথায় রেখে সাধারণ ভোক্তা শ্রেণির কষ্টের কথা বিবেচনা করে এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পর্যালোচনার প্রেক্ষিতে অ্যসোসিয়েশনের প্রস্তাবিত মূল্য হ্রাস করে এই সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আন্তর্জাতিক বাজারেও পণ্যটির দাম এখন বেশ চড়া। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ভ্যাট কমিয়ে দাম কিছুটা স্বাভাবিক করার প্রস্তাবনা ছিল। কিন্তু জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) রাজস্ব আহরণকে প্রাধান্য দেওয়ায় তা সম্ভব হয়নি।

 

Facebook Comments Box
(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

Posted ৪:১৭ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৯ মে ২০২১

bankbimaarthonity.com |

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

রডের দাম বাড়ছে
(11249 বার পঠিত)

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রধান সম্পাদক: মোহাম্মাদ মুনীরুজ্জামান
নিউজরুম:

মোবাইল: ০১৭১৫-০৭৬৫৯০, ০১৮৪২-০১২১৫১

ফোন: ০২-৮৩০০৭৭৩-৫, ই-মেইল: bankbima1@gmail.com

সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: পিএইচপি টাওয়ার, ১০৭/২, কাকরাইল, ঢাকা-১০০০।