• শিরোনাম

    বাজেট আলোচনায় অর্থমন্ত্রী

    বীমার আওতায় আসছে সাধারণ জনগণ

    আব্দুল্লাহ ইবনে মাস্উদ | ১৯ জুন ২০১৯ | ২:৪৭ অপরাহ্ণ

    বীমার আওতায় আসছে সাধারণ জনগণ

    দেশের সাধারণ জনগণকে বীমার আওতায় আনার উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে এ প্রস্তাব করা হয়। তবে বীমাখাতের দাবির প্রতিফলন ঘটেনি ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে। নতুন নতুন বীমা প্রকল্প চালুর কথা থাকলেও কমানো হয়নি এখাতের বিভিন্ন ভ্যাট ও ট্যাক্সের পরিমাণ। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ বাজেট উপস্থাপন করেন।

    বাজেট প্রস্তাবে বলা হয়, আমাদের দেশে জীবন বীমা অনেক দুর্বল, এটাকে জনপ্রিয় করা গেলে অর্থনীতিতে বিশাল ভূমিকা রাখতে পারবে।
    প্রস্তাবিত বাজেটে নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধিতে দরিদ্র নারীদের জন্য ক্ষুদ্রবীমা, কৃষকদের রক্ষায় শস্য বীমা, গবাদিপশু বীমা, সরকারি কর্মচারীদের স্বাস্থ্যবীমা চালুর প্রস্তাব করা হয়েছে। এ ছাড়াও সরকারি কর্মচারীদের গ্রæপ বীমার আওতায় আনতে বীমাখাতের বিদ্যমান ব্যবস্থা সংস্কার করে জীবন বীমা করপোরেশনের সহযোগিতায় একটি সমন্বিত বীমা ব্যবস্থা চালু করা হবে।

    দুর্ঘটনা ও অন্যান্য কারণে ক্ষতিগ্রস্ত প্রবাসী শ্রমিক এবং তাদের পরিবারের আর্থিক ক্ষতি লাঘবে বীমা সুবিধা নেই উল্লেখ করে প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য খুব শীগ্রই বীমা প্রকল্প চালুর কথা বলা হয়েছে বাজেট প্রস্তাবে। তবে বীমাখাতের দাবির প্রতিফলন ঘটেনি প্রস্তাবিত বাজেটে। নতুন নতুন বীমা প্রকল্প চালুর কথা থাকলেও কমানো হয়নি এখাতের বিভিন্ন ভ্যাট ও ট্যাক্সের পরিমাণ। প্রতি বছরের মতো এবারো প্রাক-বাজেট আলোচনায় এসব দাবি উত্থাপন করেছিল বীমাকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স অ্যাসোসিয়েশন (বিআইএ) ।

    বীমাখাতের উন্নয়নে সংগঠনটি এ বছর কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব করেছিল। এগুলো হলো- পুনর্বীমা কমিশনের বিপরীতে ১৫ শতাংশ উৎসে ম‚ল্য সংযোজন কর কর্তন সম্পর্কিত আইন সংশোধন। নন-লাইফ ইন্স্যুরেন্স কর্তৃক গৃহীত স্বাস্থ্য বীমার উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট মওকুফ। জীবন বীমা পলিসি হোল্ডারদের পলিসি বোনাসের উপর ৫ শতাংশ গেইন ট্যাক্স মওকুফ। বীমা এজেন্টদের উৎসে কর মওকুফ। করপোরেট কর হার হ্রাসকরণ। কৃষি বীমার প্রিমিয়ামের উপর ম‚ল্য সংযোজন কর রহিতকরণ। অনলাইন ভিত্তিক বীমার প্রিমিয়ামের উপর ম‚ল্য সংযোজন কর রহিতকরণএবং নতুন সামাজিক পণ্য ট্যাক্স এবং ভ্যাট ছাড়।
    বীমা মালিকদের এসব দাবির বিষয়ে সুস্পষ্ট কোন বক্তব্য না থাকলেও বীমাখাতের ব্যাপক উন্নয়নের উদ্যোগ হিসেবে ডিজিটাইজেশন ও পেনিট্রেশন বৃদ্ধির পরিকল্পনা করা হয়েছে। বৃহৎ প্রকল্পের মাধ্যমে সৃষ্ট সম্পদের বীমা দেশিয় বীমা কোম্পানির মাধ্যমে সম্পাদনের ব্যবস্থা করা ছাড়াও লস অব প্রফিটের জন্য বীমা চালুর উদ্যোগ নেয়ার কথা বলা হয়েছে।
    এ ছাড়াও রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্পের ক্ষেত্রে বীমা কোম্পানির সেবার উপর মূল্য সংযোজন কর (মূসক) অব্যাহতির প্রস্তাব করা হয়েছে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে।

    উল্লেখ্য, এবারের বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। আগামী ৩০ জুন এ বাজেট পাস হবে। এবারের বাজেট দেশের ৪৮তম এবং আওয়ামী লীগ সরকারের ২০তম। অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের এটি প্রথম বাজেট।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    নভেম্বর ২০১৯
    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    « অক্টোবর    
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি