• শিরোনাম

    লাইসেন্স ছাড়াই ব্যবসা করছে চার জীবন বীমা কোম্পানি

    বিবিএনিউজ.নেট | ০৪ জুলাই ২০১৯ | ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ

    লাইসেন্স ছাড়াই ব্যবসা করছে চার জীবন বীমা কোম্পানি

    বীমা আইন ভেঙে লাইসেন্স নবায়ন ছাড়াই ব্যবসা করছে চার বেসরকারি জীবন বীমা কোম্পানি। নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা অমান্য, সরকারি ভ্যাট ও বীমা দাবি পূরণে কালক্ষেপণ এবং বিদ্যমান আইন মানতে ব্যর্থতার অভিযোগে আড়াই বছর ধরে বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স, প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স ও সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের লাইসেন্স নবায়ন করছে না বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। তারপরও লাইসেন্স নবায়ন ছাড়াই জীবন বীমা ব্যবসা করছে ওই চার কোম্পানি। এ পরিস্থিতিতে লাইসেন্স নবায়ন ছাড়া জীবন বীমা ব্যবসা বন্ধের কথা ভাবছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

    খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি ২০১৭ সাল থেকে লাইসেন্স ছাড়া ব্যবসা করছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা ভঙ্গের অভিযোগ ও গ্রাহকের বীমা দাবি পরিশোধে ব্যর্থতার জেরে ওই বছর কোম্পানিটির জীবন বীমা ব্যবসার লাইসেন্স নবায়ন আটকে দিয়েছিল আইডিআরএ। ২০১৮ সালেও বায়রা লাইফের লাইসেন্স নবায়ন হয়নি। কিন্তু তারপরও কোম্পানিটি ব্যবসা করে যাচ্ছে। তবে ‘লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে বিমা নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে আলোচনাও হচ্ছে’ বলে জানিয়েছেন কোম্পানিটির দায়িত্বশীলরা।

    বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এম সোলায়মান হোসেন বলেন, ‘প্রায় সাত বছর ধরে সিইও’র পদ শূন্য ছিল। যে কারণে গ্রাহকের বীমা দাবি পরিশোধসহ বেশকিছু বিষয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে; এতে কোম্পানিটি ভাবমূর্তি সংকটের মধ্যে পড়েছে। এখন আমরা গ্রাহকের দাবি নিয়মিতভাবে পরিশোধ করছি। অন্যান্য জটিলতাও অনেক কেটেছে। লাইসেন্স নবায়নের জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা কাজ করছে। যতদূর জানি, ওই প্রক্রিয়াটি প্রায় শেষ পর্যায়ে আছে।’

    সরকারি সিকিউরিটিজে বিনিয়োগের বাধ্যবাধকতা না মানা ও বাড়তি ব্যবস্থাপনা ব্যয় বেশকিছু কারণে কয়েক বছর ধরে নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ’র তোপের মুখে রয়েছে ইসলামী জীবন বিমা কোম্পানি ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। বিদ্যমান আইন ও নির্দেশনা না মানায় কোম্পানিটির লাইসেন্স নবায়ন করছে না আইডিআরএ। ২০১৭ সাল থেকে ফারইস্ট ইসলামী লাইফের লাইসেন্স নবায়ন আটকে আছে। প্রায় আড়াই বছর লাইসেন্স নবায়ন ছাড়াই ব্যবসা করে যাচ্ছে বিমা বাজারের ১১ দশমিক ১৫ শতাংশ দখলে রাখা কোম্পানিটি। তবে লাইসেন্স নবায়নের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে ফারইস্ট ইসলামী লাইফের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. হেমায়েত উল্লাহর সঙ্গে কয়েক দফা যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। এসএমএস পাঠিয়েও কোনো প্রতিউত্তর পাওয়া যায়নি।
    কয়েক বছর ধরে মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্ব ও আইনি জটিলতায় ঘুরপাক খাচ্ছে প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স। যে কারণে বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনাও মানতে পারছে না কোম্পানিটি। এমনকি বারবার তাগিদ দেওয়ার পরও নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ’র নির্দেশনা মেনে আর্থিক প্রতিবেদন জমা দিতে পারছে না কোম্পানিটি। একই কারণে কোম্পানিটির অ্যাকচুয়ারিয়াল ভ্যালুয়েশনও আটকে আছে। তাই বিদ্যমান আইন ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা না মানার অভিযোগ তুলে ২০১৭ সাল থেকে ওই জীবন বিমা কোম্পানির লাইসেন্সও নবায়ন করছে না নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ। তাই লাইসেন্স নবায়ন না করেই জীবন বিমা ব্যবসা করছে প্রগ্রেসিভ লাইফ।

    প্রগ্রেসিভ লাইফের সিইও দীপেন কুমার সাহা বলেন, ‘আমরা লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়া শুরু করেছি। ভ্যাট নিয়ে জটিলতা হয়েছিল, সেটি কাটিয়ে কাগজপত্র জমা দিয়েছি। লাইসেন্স নবায়নের ক্ষেত্রে আর কোনো প্রতিবন্ধকতা নেই।’

    জীবন বীমা খাতের আরেক কোম্পানি সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্স। মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ইস্যুতে এনবিআরের সঙ্গে আইনি প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে কোম্পানিটির। আর ভ্যাট পরিশোধ নিয়ে আইনি জটিলতার কারণেই সন্ধানী লাইফের লাইসেন্স নবায়ন আটকে আছে। ২০১৭ সালের পর আর লাইসেন্স নবায়ন করা হয়নি।

    সন্ধানী লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কোম্পানি সচিব মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘ভ্যাট নিয়ে এখনও আইনি প্রক্রিয়া চলছে। এর নিষ্পত্তি না হওয়ায় আইডিআরএ কোম্পানির লাইসেন্স নবায়ন করছে না। এজন্য মামলা নিষ্পত্তি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।’

    আইডিআরএ সদস্য ড. এম মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘ভ্যাট পরিশোধ না করা ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা অমান্য করার কারণে কয়েকটি কোম্পানির লাইসেন্স নবায়ন করা হচ্ছে না। কয়েকটি কোম্পানির লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়াধীন। লাইসেন্স নবায়ন না করে ব্যবসা করার কোনো সুযোগ নেই; তারপরও কিছু কোম্পানি ব্যবসা করছে। তাই নবায়ন ছাড়া যাতে কেউ ব্যবসা করতে না পারে, সে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

    উল্লেখ্য, বিদ্যমান আইন অনুযায়ী নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছ থেকে লাইসেন্স নেওয়া জীবন বীমা কোম্পানিগুলোকে প্রতি নভেম্বর মাসের মধ্যেই পরবর্তী লাইসেন্স নবায়নের জন্য আবেদন করতে হয়। লাইসেন্স ফি পরিশোধ, আইন ও বিমা নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশনা পরিপালন এবং কোম্পানির স্বচ্ছতা-জবাবদিহি বিবেচনায় পরবর্তী এক বছরের জন্য লাইসেন্স নবায়ন করা হয়।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি