• বেসিক ব্যাংকের বেতন-ভাতা না কমানোর বিষয়টি পুনর্বিবেচনার নির্দেশ

    বিবিএনিউজ.নেট | ০৭ মার্চ ২০২০ | ৩:৩৮ অপরাহ্ণ

    বেসিক ব্যাংকের বেতন-ভাতা না কমানোর বিষয়টি পুনর্বিবেচনার নির্দেশ
    apps

    বেসিক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা না কমানোর বিষয়টি পুনর্বিবেচনার নির্দেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

    সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালকে বেতন না কমানোর বিষয়টি পুনর্বিবেচনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান একটি চিঠি দিয়েছেন। চিঠিতে বলা হয়, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন পাওয়া আইন ও নৈতিক অধিকার।

    Progoti-Insurance-AAA.jpg

    বিষয়টি আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সুরাহা করতে বলা হয়। এ চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে বেসিক ব্যাংকের বেতন-ভাতার বিষয়টি নতুন করে দেখতে শুরু করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

    জানা গেছে, গত ফেব্রুয়ারি থেকেই বেসিক ব্যাংকের বেতন কাঠামো হ্রাস করা হয়েছে। এ নিয়ে আদালতে রিটও চলছে।


    অর্থমন্ত্রীর কাছে পাঠানো চিঠিতে ড. মসিউর রহমান বলেন, বিগত দিনে বেসিক ব্যাংকে আর্থিক সংকট থাকলেও তা কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হয়েছে। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রচেষ্টায় গত বছরের শেষ প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ব্যাংকের আমানত সংগ্রহ ১২ হাজার ৮৭০ কোটি থেকে বেড়ে ১৩ হাজার ৭৪২ কোটি টাকা দাঁড়িয়েছে।

    ফলে এ সময়ে আমানত বেড়েছে ৮৭২ কোটি টাকা। একইভাবে ব্যাংকটিতে উল্লেখযোগ্য হারে খেলাপি ঋণের পরিমাণও হ্রাস পেয়েছে। ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত এ ব্যাংকে খেলাপি ঋণের পরিমাণ কমে দাঁড়িয়েছে ৪৯ দশমিক ৪৬ শতাংশ, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ছিল ৫৬ দশমিক ৮৫ শতাংশ। এক বছরের ব্যবধানে খেলাপি কমেছে ৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরলস প্রচেষ্টার কারণে খেলাপি ঋণের পরিমাণ কমার পাশাপাশি আমানতের পরিমাণও বাড়ছে।

    চিঠিতে আরও বলা হয়, বর্তমান কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে ব্যাংকটিকে ফের লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ অবস্থায় ২২ ডিসেম্বর বেতন-ভাতা কমানোর নির্দেশনা জারি করে পরিচালনা পর্ষদ, যা কার্যকর হলে বেতন-ভাতা প্রায় ৩০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত হ্রাস পাবে।

    বর্তমান কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বোনাস বন্ধ করা হয়েছে। একইভাবে বেতন-ভাতা কমানোর সিদ্ধান্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দৃঢ় মনোবল ও উদ্যোগ বাধাগ্রস্ত করবে, যা পরে ব্যাংকের চাকরিজীবীরা কার্যক্রম পরিচালনায় নিরুৎসাহিত হবেন।

    চিঠিতে আরও বলা হয়, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা কমানো হলে সবার মনোবল ভেঙে যাবে এবং ব্যাংকের সুনাম ক্ষুণ্ন হবে। পাশাপাশি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২১শ’ পরিবার পথে বসার উপক্রম হবে।

    সূত্র জানায়, ২২ ডিসেম্বর বেসিক ব্যাংকের সব কর্মকর্তার বেতন-ভাতা কমানোর নির্দেশ প্রদান করে পরিচালনা পর্ষদ। ব্যাংকের মানবসম্পদ বিভাগ থেকে এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি জারি করে সব শাখা প্রধানের কাছে পাঠানো হয়।

    ডিসেম্বরে ঘোষণা দেয়ার পর ফেব্রুয়ারিতে বেতন-ভাতা কমানো হয়েছে। সর্বনিম্ন পাঁচ হাজার থেকে সর্বোচ্চ আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত বেতন হ্রাস করা হয়েছে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের।

    জানা গেছে, বেতন-ভাতা না কমানোর জন্য বেসিক ব্যাংকের সব স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী অর্থমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিবের কাছে আবেদন করেন।

    উল্লেখ্য, গত আগস্টে বেসিক ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ব্যাংকটিতে কর্মরতদের বেতন কমানোর নির্দেশনা দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ওইদিন বেসিক ব্যাংক কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা ৩৫৪ কোটি টাকা লোকসান করেছেন। মাত্র ৭২টা শাখার জন্য এখানে প্রায় ২১০০ জনবল আছে। এত লোকের এখানে কী কাজ?’

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৭ মার্চ ২০২০

    bankbimaarthonity.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    Archive Calendar

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫
    ১৬১৭১৮১৯২০২১২২
    ২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
    ৩০৩১  
  • ফেসবুকে ব্যাংক বীমা অর্থনীতি